সালমান-রাকুল-অক্ষয়সহ ৩৮ অভিনেতার নামে মামলা

বিনোদন ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে
ছবি সংগৃহীত

দুই বছর আগে অর্থাৎ ২০১৯ সালে হায়দরাবাদ গণধর্ষণের ঘটনায় সারাদেশ তোলপাড় শুরু হয়ে গিয়েছিলো। এমন ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন বলিউড ও দক্ষিণের অনেক তারকারা। সেই জের ধরে চলতি বছরে সেসব তারকার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হলো। সালমান খান, অক্ষয় কুমার, রাকুল প্রীত সিং, অজয় দেবগনসহ মোট ৩৮ জন তারকার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন দিল্লি নিবাসী আইনজীবী গৌরব গুলাটি।

তার অভিযোগ, ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় গণধর্ষিতার পরিচয় জানিয়ে দিয়েছেন প্রত্যেকে।

২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে হায়দরাবাদের পশু-চিকিৎসকের গণধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। ২৬ বছরের তরুণীকে ধর্ষণ করে জ্যান্ত পুড়িয়ে খুন করার ঘটনায় স্তম্ভিত হয় আসমুদ্রহিমাচল। গোটা দেশে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি ওঠে। প্রতিবাদে মুখর হয়েছিলেন তারকারাও। ঘটনাকে দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডের সঙ্গে তুলনা করে সালমান খান টুইটারে লেখেন “এরা মানুষের বেশে শয়তান। ” অক্ষয় কুমার লেখেন, “ধর্ষণ বন্ধ করতে অতি অবশ্যই কঠোর আইন আনা উচিত।”

ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন, অজয় দেবগন, ফারহান আখতার, রাকুল প্রীত সিংয়ের মতো তারকারা। দক্ষিণী তারকা আল্লু শিরিষ, রবি তেজা, চার্মি কউরও প্রতিবাদ করেছিলেন। অনেকেই পশুচিকিৎসকের (ধর্ষিতা) নাম নিজেদের বার্তায় কিংবা হ্যাশট্যাগ হিসেবে ব্যবহার করেছিলেন। তাতেই তীব্র আপত্তি জানিয়েছিলেন দিল্লির আইনজীবী গৌতম গুলাটি।

দিল্লির সবজি মাণ্ডি থানায় অক্ষয়, সলমন-সহ মোট ৩৮ জন তারকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন গৌতম। পাশাপাশি তিস হাজারি আদালতে পিটিশনও দাখিল করেছেন তিনি। গৌতমের অভিযোগ, তারকাদের সামাজিক দায়িত্ববোধ থাকা উচিত ছিল। এভাবে একজন গণধর্ষিতার নাম তাদের প্রকাশ্যে লেখা উচিত হয়নি। ক্ষোভ, সমবেদনা প্রকাশ কিংবা প্রতিবাদ করার অনেক উপায় রয়েছে। এভাবে নির্যাতিতার নাম প্রকাশ্যে লেখা যায় না।

শোনা গিয়েছে, এই দায়িত্বজ্ঞানহীনতার জন্য অভিযুক্ত তারকাদের গ্রেপ্তারির দাবি করেছেন দিল্লির আইনজীবী।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...