ভাতা না পেয়ে দৌলতপুর সমাজসেবা অফিসে অনশন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১:৩৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে
অনশন

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে প্রায় এক বছর ধরে ভাতা পাচ্ছেন না সমাজসেবা অধিদপ্তরের বিধবা, বয়স্ক এবং প্রতিবন্ধী শতাধিক নারী-পুরুষ। দিনের পর দিন সমাজসেবা অফিসে ধরনা দিয়েও ভাতার টাকা পাননি তারা। শেষ পর্যন্ত বিক্ষুব্ধ অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে দিনভর অনশন করেন।

প্রথমে গত মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) অনশন করেন তারা। পরে ওইদিন রাত ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তারের আশ্বাসে বিক্ষুব্ধ নারী-পুরুষ তাদের অনশন ভঙ্গ করেন। পরবর্তীতে আজ বৃহস্পতিবার ফের অনশন পালন করছেন তারা।

জানা যায়, দৌলতপুর উপজেলার পিয়ারপুর ইউনিয়নের পুরোনো আমদহ গ্রামের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিধবা, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী শতাধিক নারী-পুরুষ এক বছর ধরে তাদের সরকারি ভাতার টাকা পাচ্ছেন না। টাকা পেতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সমাজসেবা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন জায়গায় সমাধান চেয়েও পাননি।

কার্ডধারী অসহায় ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন, এক বছর ধরে যে মোবাইল নম্বরগুলোতে ভাতার টাকা ঢুকেছে, সে নম্বরগুলো তাদের নয়। তাদের পরিবর্তে অন্য ব্যক্তিদের মোবাইল নম্বরে এসব টাকা ঢুকেছে।

তারা জানান, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ভাতার টাকা পেয়েছেন তারা। এরপর তাদের জানানো হয়, মোবাইলে মেসেজ গেলে টাকা পাবেন। কিন্তু এক বছর ধরে তারা কোনো মেসেজ পাননি।

জানা যায়, প্রায় এক বছর ধরে ভাতার টাকা না পেয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে শতাধিক নারী-পুরুষ উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে আমরণ অনশন শুরু করেন। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা দফায় দফায় তাদের অনশন ভঙ্গ করার অনুরোধ জানিয়ে ব্যর্থ হন। পরে রাত ১১টার দিকে সমস্যা সমাধান করা হবে এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে তারা অনশন ভঙ্গ করেন।

কিন্তু সমস্যা সমাধান না হওয়ায় আবারও বৃহস্পতিবার ভুক্তভোগীরা উপজেলা সমাজসেবা অফিসের সামনে অনশন করছে।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আতাউর রহমান জানান, দ্রুত বিষয়টির সমাধান করা সম্ভব হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, আগামী দু-একদিনের মধ্যে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেয়া হয়েছে অনশনকারীদের।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...