টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে বোরো ধান

সোমবার, ২১ মে, ২০১৮ ৮:৪৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ
0
232
বগুড়া প্রতিনিধি:

বগুড়ায় তিনদিনের বর্ষণে নিচু এলাকার বোরো ধানের ক্ষেত হাঁটু পানিতে তলিয়ে গেছে। জেলার নদী এলাকা সারিয়াকান্দি, ধুনট, সোনাতলা, শাজাহানপুর, শিবগঞ্জ উপজেলার কমপক্ষে ১২ হাজার হেক্টর বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, রোদ উঠলে পানি কমে যাবে।

জানা যায়, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোরগাছা, ভেলুরপাড়া, সুখদহ, তেকানী চুকাইনগর, পাকুল্লাহ, সারিয়াকান্দি উপজেলার নারচি, কাজলা, চালুয়াবাড়ি, হাটশেরপুর, ধুনট উপজেলার ভান্ডাবাড়ি নদী এলাকার নিচু জমিতে চাষকৃত বোরো ধান টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে। চাষিরা পানি সেচ দিচ্ছে। ক্ষেতের মাঝ থেকে নালা তৈরি করে পানি বের করে দেয়ার কাজ করছে। আবার কোথাও পাকা ধানগুলো কেটে নিচ্ছে।

বগুড়ার সোনাতলার জোরগাছা এলাকার এক চাষি জানান, টানা বৃষ্টির কারণে জমিতে পানি জমেছে। হাঁটু পানি থাকায় জমির ধান কাটা হচ্ছে। দুইদিন পর কাটলে ভাল হতো। কিন্তু বৃষ্টির সাথে ঝড়ো বাতাসে ধানগুলো মাটিতে শুয়ে পড়েছে। পানিতে ক্ষতি হবে বলে কিছুটা আগেই কেটে নেয়া হচ্ছে।

বুধবার সরজমিনে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, গত তিন দিনের অবিরাম বর্ষণে নিচু এলাকার পাশাপাশি খালে-বিলে রোপনকৃত প্রায় ৯ হাজার ৮শ হেক্টর জমির ইরি-বোরো ধান বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। বেশিরভাগ ক্ষেতেই হাঁটু পানি জমে আছে।

এদিকে বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বলছে, ১২ হাজার হেক্টর হবে না। খুবই কম পরিমাণ জমিতে পানি জমেছে। সাধারণত বৃষ্টিপাত হলে নিচু জমিতে পানি জমে। এই পানি আবার রোদ উঠলে শুকিয়ে যায়। এছাড়া জেলায় বেশ কিছু নদী রয়েছে। নদীর ঢালুতেও কেউ কেউ বোরো চাষ করেছে। এই জমিগুলোতে একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়। বেশিরভাগ জমির ধান কাটার সময় হয়েছে। এতে কৃষকদের শঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমরা কৃষকদের পাকা ধান কেটে নেয়ার পরামর্শ প্রদান করছি। ধানের এখন পর্যন্ত কোন ক্ষতি হয়নি। তবে এ বিষয় নিয়ে কৃষি কর্মকর্তারা মাঠে কাজ করছে।