সুন্দরী প্রতিযোগিতার সাতকাহন

বৃহস্পতিবার, ৩১ মে, ২০১৮ ২:০৪:২৯ অপরাহ্ণ
0
234
অনলাইন ডেস্ক:

মিস ওয়ার্ল্ড, মিস ইউনিভার্স– এসব প্রতিযোগিতার নাম আমরা সবাই জানি৷ কিন্তু এর বাইরেও যে কত ধরনের সুন্দরী প্রতিযোগিতা থাকতে পারে, তা হয়তো কারো কারো অজানা থাকতে পারে। আসুন সুন্দরী প্রতিযোগিতার সাতকাহন জেনে নেই।

মিস ওয়ার্ল্ড: ২৩ বছর বয়সী ফিলিপাইনের তরুণী মেগান ইয়ং ২০১৩ সালে মিস ওয়ার্ল্ড নির্বাচিত হন৷ চূড়ান্ত পর্বটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল জাকার্তায়৷ কিন্তু মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতিবাদের মুখে হিন্দু অধ্যুষিত বালিতে ভেন্যুটি সরিয়ে নেয়া হয়েছিল৷

মিস মুসলিম ওয়ার্ল্ড: জাকার্তায় মিস ওয়ার্ল্ড হতে দেয়া না হলেও ২০১৩ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় ‘মিস মুসলিম ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতা৷ ১৯ জন ফাইনালিস্টের দেহ গলা পর্যন্ত পোশাকে আবৃত ছিল আর মাথায় ছিল স্কার্ফ৷ ইসলাম ও কোরান সংক্রান্ত প্রশ্ন করা হয়েছিল প্রতিযোগীদের৷ নাইজেরিয়ার ২১ বছর বয়সী ওবাবিয়ি আয়েশা আজিবোলা তাতে প্রথম হন৷

মিস হলোকস্ট সারভাইভার: ছবির এই নারীটি ৭০ বছর আগে হলোকস্টের বা নাৎসিদের ইহুদি নিধনযজ্ঞের শিকার হওয়ার হাত থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন৷ তবে মুক্তি পাননি তাঁর বাবা৷ তিনি ইসরায়েলে অনুষ্ঠিত ২০১৩ সালের ‘মিস হলোকস্ট সারভাইভার’ নির্বাচিত হয়েছেন৷ ৭০ থেকে ৯৪ বছর বয়সি প্রতিযোগীদের ‘মনের সৌন্দর্য’ বিবেচনা করে বিজয়ী নির্ধারণ করা হয়েছে এক্ষেত্রে৷

মিস ল্যান্ডমাইন: নরওয়ের মোর্টেন ট্রাভিকের উদ্যোগে ল্যান্ডমাইনের আঘাতের শিকারদের নিয়ে ‘মিস ল্যান্ডমাইন’প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল৷ কম্বোডিয়া আর অ্যাঙ্গোলা থেকে প্রতিযোগীরা তাতে অংশ নিয়েছিল৷ কিন্তু ২০০৯ সালে কম্বোডিয়া এ ধরনের প্রতিযোগিতার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে৷ কারণ সে দেশের সরকার মনে করে এটা আহতদের অসম্মান করা শামিল৷

মিনি-মিস-প্যাজান্ট: আট বছরের এই দুই শিশুর সাজ দেখে মনে হচ্ছে তারা যেন বেশ তাড়াতাড়িই পরিণত বয়সের নারীতে পরিণত হচ্ছে৷ অনেক আলোচনার পর ফ্রান্সে সম্প্রতি এ ধরনের প্রতিযোগিতার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে৷

১২৫ বছরের ইতিহাস: বেলজিয়ামের স্পা শহরে ১২৫ বছর আগে প্রথমবারের মতো ইউরোপীয় সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল৷ কিন্তু চূড়ান্ত পর্বে ফাইনালিস্টদের সাজ পোশাক দর্শকদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে ব্যর্থ হয়৷

মিস অ্যাটম: পরমাণু কেন্দ্র নিয়ে সাধারণ মানুষের মনের ভয় দূর করতে ২০০৪ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত রাশিয়াতে ‘মিস অ্যাটম’প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়৷ পরমাণু কেন্দ্রে কর্তব্যরত কর্মী ও পরমাণু বিষয় নিয়ে পড়ুয়ারা এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতেন৷

মিস হোমলেস: গৃহহীনদের সমস্যা সম্পর্কে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে দাতব্য সংস্থা আর্টেফিক্সের উদ্যোগে ‘মিস হোমলেস’প্রতিযোগিতার আয়োজন করা শুরু হয় ২০০৯ সাল থেকে৷ এতে যিনি বিজয়ী হতেন তাঁকে এক বছর বিনা ভাড়ায় কোথাও থাকতে দেয়া হতো৷

মিস জাম্বো কুইন: হাতি রক্ষায় থাইল্যান্ডে আয়োজন করা হয় এই প্রতিযোগিতা৷ এতে অংশগ্রহণের জন্য আগ্রহীদের ওজন হতে হয় কমপক্ষে ৮০ কেজি!