বাজেটে এমপিওভুক্তির জন্য বরাদ্দ থাকছে

মঙ্গলবার, ৫ জুন, ২০১৮ ১২:৫৬:৩৭ অপরাহ্ণ
0
88

অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচনকে সামনে রেখে আসন্ন বাজেটে মেগা বরাদ্দ পাচ্ছে শিক্ষা খাত। শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় মিলে ৫২ হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ পাচ্ছে। সরকারের অগ্রাধিকার মন্ত্রণালয়ের মধ্যে শিক্ষার অবস্থান এবার চতুর্থ। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজেটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার জন্য অর্থ বরাদ্দ থাকছে। তবে বরাদ্দকৃত অর্থ শুধু শিক্ষকদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য দেওয়া হবে না। মোট বরাদ্দের বেশির ভাগ স্কুলের অবকাঠামো নির্মাণ বা উন্নয়নের জন্য ব্যয় করতে হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার বিষয়টি বাজেট বরাদ্দে অন্তর্ভুক্ত করা হলেও এ খাতে যা বরাদ্দ দেওয়া হবে, তার ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ শিক্ষকদের বেতন-ভাতা খাতে ব্যয় করা যাবে। অর্থাৎ যেনতেন ভাবে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ থাকছে না। তবে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ অর্থ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ এবং উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রায় ৯ বছর ধরে আটকে থাকা বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি দেয়ার প্রতিশ্রুতি রয়েছে সরকারের। তবে এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে এমন শোনা গেলেও কত বরাদ্দ তা পরিষ্কার করে বলা হয়নি। কর্মকর্তারা বলছেন, কত প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে তার দেখভাল করছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। সে তালিকা এখনো অর্থ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে না পৌঁছানোর কারণে এ খাতে কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি। তবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এমপিওভুক্তি দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসার পর অর্থের বিষয়টি পরিষ্কার করা হবে। প্রয়োজনে থোক বরাদ্দ থেকে দেয়া হবে। অন্য একটি সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন বাজেটে এমপিও ঘোষণা দেয়া হবে। এমন ঘোষণা আসলে নতুন করে এ খাতে ব্যয় বাড়বে। তবে এমপিও দেয়া হলে এক্ষেত্রে নানা ধরনের শর্ত থাকবে বলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিদ সাংবাদিকদের বলেছেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামী ৭ জুন দুপুর সাড়ে ১২টায় জাতীয় সংসদের চলতি অধিবেশনে বর্তমান সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে টানা ১০ম বাজেট সংসদে উপস্থাপন করবেন। প্রতি অর্থবছরের বাজেটকে অর্থমন্ত্রী একটি শিরোনামে ভূষিত করে থাকেন। এবারের বাজেটের শিরোনাম হবে ‘সমৃদ্ধ আগামী : অগ্রযাত্রার বাংলাদেশ।’

এর আগে সকাল ১০টায় কেবিনেট বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট পাশ করা হবে। রোজার দিন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় সফরে বিদেশ যাওয়ার কর্মসূচি থাকায় খুব সংক্ষিপ্ত আকারে বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী। পরের দিন ৮ জুন দুপুর আড়াইটায় বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে। ২৮ জুন সংসদে অর্থবিল পাশ হবে। ৩০ জুন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পাশ হবে।

শিক্ষায় সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ রাখা হয়েছে শিক্ষা প্রকৌশল বিভাগে (ইইডি)। এ দপ্তরের জন্য আসন্ন বাজেটে ১৬১২ কোটি ৮ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। পরে দুই অর্থবছরে এ দপ্তরের বরাদ্দ ধরা হয়েছে যথাক্রমে ১১০০ কোটি ৮৫ লাখ এবং ১২০০ কোটি ৫ লাখ টাকা। এখানে বরাদ্দ বাড়ার ব্যাখ্যা দিয়েছে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানযালা। তিনি বলেন, শিক্ষার অবকাঠামোর উন্নয়নে চলতি বছর সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ পেয়েছে। একনেকে পাস হওয়া দুটি প্রকল্পে ১৬ হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। দুটি প্রকল্পে অর্থ ছাড়ের সরকারি অর্ডার (জিও) হয়েছে। চলতি মাসে সারা দেশে শিক্ষার অবকাঠামো উন্নয়নের বিপ্লব হিসেবে খ্যাত এ প্রকল্পের দরপত্র দেয়া হচ্ছে। এছাড়াও প্রত্যেক এমপির জন্য আরো ৭টি নতুন মাদরাসা নির্মাণের জন্য প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ রেখে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে একনেকে। খুব শিগগিরই এটি পাস হলে আরো বরাদ্দ বেড়ে যাবে।