বজ্রপাতের ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে জনসচেতনতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই: ইয়াফেস ওসমান

বুধবার, ৬ জুন, ২০১৮ ২:৫৭:১৬ অপরাহ্ণ
0
157

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন, ইদানিং বজ্রপাতের ভয়াবহতায় যে প্রাণহানি ঘটছে, তা থেকে উত্তরণে কোন স্থায়ী সমাধান নেই। বজ্রপাতের এই ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে দেশব্যাপী জনসচেতনতা বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই। তিনি জনসচেতনামূলক কার্যক্রম গ্রহণে এগিয়ে আসার জন্য ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের প্রতি আহ্বান জানান। গতকাল মন্ত্রী আইডিইবি ঢাকা জেলা ও আইডিইবি স্টাডি এন্ড রিসার্চ সেল আয়োজিত “বজ্রপাতজনিত ভয়াবহতা মোকাবেলায় করণীয়” শীর্ষক সেমিনার ও ইফতার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইয়াফেস ওসমান আরো বলেন, বজ্রপাতের ভয়বহতা রোধে সরকার স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছে। এ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে দেশব্যাপী তাল বৃক্ষ রোপন করা হচ্ছে। এর সুফল পেতে অনেক সময় লাগবে। তবে সচেতনতা বৃদ্ধি করা গেলে স্বল্প মেয়াদে ভাল ফল আসতে পারে। তিনি বলেন, স্বল্প মেয়াদি পরিকল্পনা হিসেবে বিভিন্ন স্থাপনা এবং ফসলি জমিতে স্থায়ী ও অস্থায়ীভাবে বজ্রপাত রক্ষা দন্ড স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইডিইবি ঢাকা জেলার সভাপতি মো.খবির হোসেন বিশেষ অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিওগ্রাফি এন্ড এনভায়রনমেন্ট বিভাগের প্রফেসর ড. এ কিউ এম মাহবুব ও আইডিইবি’র সভাপতি এ কে এম এ হামিদ, আইডিইবি শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সেলের উপ-পরিচালক ইয়াকুব হোসেন সিকদার, আইডিইবি ঢাকা জেলার সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

এদিকে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এম মাহবুব বলেন, ইদানিং বজ্রপাতজনিত ক্ষয়ক্ষতি আশংকাজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। যেখানে প্রান্তিক জনগোষ্ঠিই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা গেলে এ ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসা সম্ভব।বজ্রপাতের ক্ষয়ক্ষতি রোধে কিছু সুপারিশ তোলে ধরা হয়। বিশেষ করে বজ্রপাত ও ঝড়ের সময় বাড়ির ধাতব কল, সিঁড়ির ধাতব রেলিং, পাইপ ইত্যাদি স্পর্শ না করা, প্রতিটি বিল্ডিংয়ে বজ্র নিরোধক দন্ড স্থাপন, কোন বাড়িতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকে তাহলে সবাই এক কক্ষে না থেকে আলাদা আলাদা কক্ষে অবস্থান নেয়া, ছেঁড়া বৈদ্যুতিক তার থেকে দূরে থাকা, বজ্রপাতের সময় যত দ্রুত সম্ভব দালান বা কনক্রিটের ছাউনির নিচে আশ্রয় গ্রহণ, বজ্রপাতের সময় বাড়িতে থাকলে জানালার কাছাকাছি বা বারান্দায় থাকবেন না এবং ঘরের ভেতরে বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম থেকে দূরে থাকা, উঁচু গাছপালা, বৈদ্যুতিক খুঁটি, তার, ধাতব খুঁটি ও মোবাইল টাওয়ার ইত্যাদি থেকে দূরে থাকা, বজ্রপাতের সময় খোলা মাঠে থাকলে পায়ের আঙুলের ওপর ভর দিয়ে এবং কানে আঙুল দিয়ে মাথা নিচু করে বসে পড়া, বজ্রপাতের সময় মাছ ধরা বন্ধ রেখে নৌকার ছাউনির নিচে অবস্থান করার পরামর্শ দেন।