ঈদে সালমান খান-জিতের সঙ্গে শাকিবের পাল্লা!

সোমবার, ১১ জুন, ২০১৮ ১:৩৩:২৫ অপরাহ্ণ
0
122
বিনোদন ডেস্ক

এবার ঈদে ভারতের জিৎ ও সুপারস্টার সালমান খানের সঙ্গে পাল্লা হচ্ছে বাংলাদেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের! কারণ এই ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে শাকিব অভিনীত ছবি ‘ভাইজান এলো রে’। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসকে মুভিজের ব্যানারে ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে ‘ভাইজান’ ছবির কয়েকটি গান ইউটিউবে অবমুক্ত হওয়ার পর দুই বাংলাতেই প্রশংসিত হয়েছে সিনেমার গান।

বিশেষ করে ‘বেবি জান জান’ গানটি সেখানকার দর্শক চাহিদার শীর্ষে! এমনকি সেখানকার বাংলা ছবির মস্ত বড় তারকা জিতের ‘সুলতান’ ছবির গানগুলো থেকেও এগিয়েও শাকিবের ‘ভাইজান’-এর গান।

আসছে ঈদে কলকাতায় ‘ভাইজান’-এর চাহিদা কেমন?-প্রশ্নে এসকে মুভিজের কর্ণধার অশোক ধানুকা জানিয়েছেন, ঈদ উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গের ৭৫ হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘ভাইজান এলো রে’। এতেই আমরা খুশি। কারণ, সালমান খানের ‘রেস-৩’ এবং জিতের ‘সুলতান’ এই দুই ছবিও ঈদে আসছে। জিৎ এখানকার সবচেয়ে বড় তারকা। এদের সঙ্গে পাল্লা দিতে হবে শাকিব খানকে। তারপরেই এবার ঈদে শাকিব খানের ‘ভাইজান’ ছবি নিয়ে মানুষের আগ্রহ বেশি। আমার বিশ্বাস শাকিব এই ছবি দিয়ে এখানে ফাটিয়ে দেবে! আর সালমান খানের ‘রেস ৩’ তো বলার অপেক্ষা রাখেনা।

‘ভাইজান’ দিয়ে এই প্রথমবার ঈদে কলকাতায় শাকিব খানের কোনো ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এর আগে এসকে মুভিজের প্রযোজনায় শিকারি, নবাব ও চালবাজ মুক্তি পেলেও ওই তিনটা ছবি ঈদে বা এমন বড় উৎসবে মুক্তি পায়নি।

এ প্রসঙ্গে অশোক ধানুকা বলেন, ‘ভাইজান’ ঈদ টার্গেট করে বানানো হয়েছে। আগের ছবিগুলো এখানে ভালো চললেও কোনো ঈদ উৎসব পায়নি। বাংলাদেশে মুক্তির পর ‘নবাব’ ছবিটি পাইরেসি হয়েছিল বলে কিছুটা ক্ষতির সম্মুখন হই কলকাতাতে। তবে এবার বেশি ‘ভাইজান’ দিয়ে প্রত্যাশা অনুযায়ি ব্যবসা করতে পারবো বলে আশা করছি। তাছাড়া ‘বেবি জান’ গানটা এতো হিট করেছে যে, ‘ভাইজান’ নিয়ে এখানকার দর্শকদের ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছে।

তিনি বলেন, শাকিব খানকে নিয়ে ‘ভাইজান এলো রে’ হলো এসকে মুভিজের চার নম্বর ছবি। আগের তিনটি ছবির থেকে ‘ভাইজান’ এখানে ভালো চলবে বলে আমি বিশ্বাস করি। কারণ, শাকিব খানকে এখানে মানুষ চিনতে শুরু করেছে। তার দর্শক তৈরি হচ্ছে।

অশোক ধানুকা বলেন, ‘সবচেয়ে বড় কথা হলো আমার কনটেন্ট ভালো। আর ভালো কনটেন্ট হলে দর্শক অবশ্যই হুমড়ি খেয়ে দেখবে। আমি না খেয়ে থাকবো, তবুও কাজ করতে গেলে কোনো ছাড় দেব না। যতগুলো কাজ করি, সবগুলোতেই সঠিকভাবে করার চেষ্টা করি। যতদিন ছবি বানাবো ভালো কাজ করবো।’

আমদানি চুক্তিতে ‘ভাইজান এলো রে’ বাংলাদেশে মুক্তির কথা থাকলেও ঈদুল ফিতর, ঈদুল আযহা, পূজা ও পহেলা বৈশাখের সময় সঠিক নিয়মে নির্মিত যৌথ প্রযোজনার সিনেমা ছাড়া ভারতীয় বাংলা, হিন্দি, পাকিস্তানিসহ বাইরের দেশের যে কোনো চলচ্চিত্র দেশে আমদানি, প্রদর্শন ও বিতরণ না করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন সুপ্রিম কোটের্র আপিল বিভাগ। তাই ঈদের পর ‘ভাইজান’ এদেশে মুক্তি পাবে।

নির্দিষ্ট কোনো তারিখ টার্গেট করে কী বাংলাদেশে ভাইজান মুক্তি পাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে কলকাতার বাংলা ছবির শীর্ষ প্রযোজক অশোক ধানুকা বলেন, পৃথিবীর সবদেশে ব্যবসা করতে পারি। কিন্তু বাংলাদেশে কখন কি হয় সেটা আগাম বলা সম্ভব না। যতদিন সেন্সর না হবে বাংলাদেশে, ততদিন এটা নিয়ে কিছু বলা যাবেনা।

‘ভাইজান এলো রে’ পরিচালনা করেছেন জয়দীপ মুখার্জী। শাকিব খান, শ্রাবন্তী ও পায়েল ছাড়াও ছবিতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের মনিরা মিঠু, দীপা খন্দকার, শাহেদ আলী এবং কলকাতার রজতাভ দত্ত, বিশ্বনাথ বসু, শান্তিলাল মুখার্জি, সাগ্নিক, সুপ্রিয় দত্ত প্রমুখ।