বিশ্বে ৬ কোটির বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত

বুধবার, ২০ জুন, ২০১৮ ৭:৩২:২২ পূর্বাহ্ণ
0
109

অনলাইন ডেস্ক:

আজ বুধবার ২০ জুন বিশ্ব শরণার্থী দিবস। শরণার্থীদের অধিকার রক্ষায় জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর প্রতি বছর এই দিনে দিবসটি পালন করে থাকে। জাতিসংঘের উদ্যোগে ২০০১ সাল থেকে বিশ্বের একশ’র বেশি দেশ এই দিবসটি পালন করে আসছে। এবারের শরণার্থী দিবসের প্রতিপাদ্য হচ্ছে: ‘আমাদের আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি উদ্বাস্তুদের পাশে থাকা প্রয়োজন (Now More Than Ever, We Need to Stand with Refugees)।’
এ বছর দিবসটি এমন এক সময় পালিত হচ্ছে যখন ১১ লাখের বেশি (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হিসাব মতে ১ লাখ ১৭ হাজার ৫৭৫ জন) রোহিঙ্গা শরণার্থীর ভার বইতে হচ্ছে বাংলাদেশকে।
জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) তথ্য মতে বর্তমান বিশ্বে বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা ৬ কোটি ৫৩ লাখ। এদের মধ্যে ২ কোটি ১০ লাখ শরণার্থী হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে এবং রাষ্ট্রহীন মানুষের সংখ্যা ১ কোটি।
গড়ে প্রতিদিন ৪২৫০০ মানুষ নিরাপত্তার জন্য নিজেদের ঘরবাড়ি এমনকি দেশ ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে যাচ্ছে। কেবল গতবছরই নতুন করে বাস্তুচ্যুত হয়েছে ১ কোটি ৩৯ লাখ মানুষ।
জাতিসংঘের হিসাব মতে বিশ্বে সিরিয়া যুদ্ধের কারণেই সবচেয়ে বেশি মানুষ শরণার্থী হয়েছে। দেশটির মোট ১ কোটি ১০ লাখ মানুষ বর্তমানে শরণার্থী হিসেবে বিভিন্ন দেশে বসবাস করছে। মজার কথা হচ্ছে সিরিয়ার মোট জনগোষ্ঠীর প্রায় অর্ধেকই (৪৫ ভাগ) শরণার্থী।
জাতিসংঘের পরিসংখ্যান বলছে উন্নত নয়, বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোই সবচেয়ে বেশি শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়ে থাকে। আর উন্নত দেশগুলো অভিবাসনের নামে কেবল সামান্য পরিমাণ শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছে। জাতিসংঘের হিসাব মতে, বিশ্বের সবচেয়ে বড় শরণার্থী শিবির হচ্ছে দাদাব । আফ্রিকার দেশ কেনিয়ায় অবস্থিত এই শিবিরটিতে ৩ লাখ ২৯ হাজার শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছে।
আজকের বিশ্বে শরণার্থীদের অর্ধেকের বেশির (৫১ ভাগ) বয়স ১৮ বছরের নিচে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে পর শিশুদের শরণার্থী হবার এটিই সবচেয়ে বড় ঘটনা।

সূত্র: ডেইলি মেইল