আশাবাদী জাহাঙ্গীর, হাসানের শঙ্কা

রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ ১০:২১:১১ পূর্বাহ্ণ
0
153

অনলাইন ডেস্ক:

গাজীপুর সিটি নির্বাচন সুষ্ঠ হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। গাজীপুরের কাউলতিয়া ইউনিয়নের সালনা এলকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এক পথসভায় দেওয়া বক্তৃতায় তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নির্বাচনে নৌকার পক্ষে জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। গাজীপুরের মানুষ উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেবেন।

অন্যদিকে সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির প্রার্থী হাসান সরকার। আনুষ্ঠানিক প্রচারের শেষ দিনে এসে ভোটের পরিবেশ নিয়ে আবারও শঙ্কার কথা জানান তিনি।

রোববার সকালে টঙ্গী এলাকার দলের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, শেষ মুহূর্তের আবহাওয়া সুবিধার মনে হচ্ছে না। নিজের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়ে ধানের শীষের প্রার্থী বলেন,  বিশেষ মাধ্যমে আমি অবহিত হয়েছি, খুলনা রেঞ্জের পুলিশদেরকে এই গাজীপুরে সিটি করপোরেশন নির্বাচনের জন্য আনা হয়েছে… খুলনায় যে কায়দায় যে কৌশলে নির্বাচন করা হয়েছে, সেভাবে এখানে সম্পন্ন করার জন্য।

তার মতে, সুষ্ঠুভাবে ভোট হয়েছে বোঝানোর জন্য পুলিশের মাধ্যমে বিএনপির এজেন্টদের মধ্যে লোক ঢোকাবে। ভোট গণনা শেষ হয়ে গেলে পরে বের হয়ে যাবে।  ব্যালটে সিল মেরে মহিলাদের মাধ্যমে ‘পাঠানোর পরিকল্পনাও’ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন হাসান সরকার।

তারপরও নির্বাচনে আছেন এবং থাকবেন বলে জানান গাজীপুরের মেয়র পদে বিএনপির এই প্রার্থী। তিনি বলেন, দেশে ও সমাজে বেঁচে থাকা যায় দুইভাবে। একটি হল সুনামের সাথে, আরেকটি ঘৃণার সাথে। আমি দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক কর্মী। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে আমি আহ্বান জানাই, আমরা যেন গর্বিত হয়ে রাজনৈতিক কর্মী হিসাবে বেঁচে থাকতে চাই।

অন্যদিকে ই নির্বাচনে কয়েক দিনের প্রচারের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যেখানে গেছি, নারী-পুরুষনির্বিশেষে সবার স্বতঃস্ফূর্ত মনোভাব দেখেছি। বিগত দিনে গাজীপুর উন্নয়নবঞ্চিত হয়েছে। গাজীপুরের মানুষ আর অনুন্নয়নের পথে থাকতে চান না। তাঁরা নৌকার পক্ষে জোয়ার সৃষ্টি করেছেন।

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ রয়েছে। মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় অংশ নিচ্ছেন। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে, এতে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের নানা অভিযোগের বিষয়ে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সব অভিযোগ অমূলক। উনি সুনির্দিষ্ট করে বলুক কোথায় কাকে হয়রানি করা হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে। আমরা ব্যবস্থা নেবো। তিনি বলেন, বিএনপি প্রার্থী কেন্দ্রে এজেন্ট দিতে না পেলে অহেতুক কথাবার্তা বলছেন।

এদিকে নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে সিটি করপোরেশন এলাকায় ২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। রবিবার সকাল থেকে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে টহল শুরু করেছেন বিজিবি সদস্যরা। আজ থেকে নির্বাচনের পরদিন বুধবার (২৭ জুন) পর্যন্ত বিজিবি সেখানে অবস্থান করবে।

এর আগে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানান, ‘রবিবার রাত ১২টা থেকে অ্যাম্বুলেন্স, ডাক বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস ও সিটি করপোরেশেনের ময়লাবাহী গাড়িগুলো ছাড়া অন্য সব যানবহন বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আর পণ্যবাহী ট্রাক বিশেষ করে শিপমেন্ট ২৫ তারিখ মধ্যরাত থেকে ২৬ তারিখ মধ্যরাত পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এসব নির্দেশনার লঙ্ঘন হলে ৬ মাস থেকে ৭ বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।’

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে আগামী মঙ্গলবার।  গত সোমবার (১৮ জুন) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচার-প্রচারণা শুরু করেন প্রার্থীরা। গত ১৫ মে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণের কথা ছিল। হাইকোর্টের আদেশে প্রথমে ভোট আটকে যাওয়া। পরে আপিল বিভাগ সেটি প্রত্যাহার করে নেন। ভোটের নতুন তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মোট আয়তন ৩২৯ দশমিক ৫৩ বর্গ কিলোমিটার। ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৯টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬। এর মধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ জন ও নারী ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন। মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৪২৫। ভোটকক্ষ ২ হাজার ৭৬১টি।