এসএসইর সঙ্গে যুক্ত হতে প্রতিশ্রুতিপত্র সই করলো ডিএসই

মঙ্গলবার, ২৬ জুন, ২০১৮ ১১:০৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ
0
86
অনলাইন ডেস্ক:

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ইউনাইটেড নেশনস সাসটেইন্যাবল স্টক এক্সচেঞ্জ (এসএসই) ইনিশিয়েটিভের সঙ্গে যুক্ত হতে একটি প্রতিশ্রুতি পত্রে সই করেছে। গত ৭ জুন এই প্রতিশ্রুতি পত্রে সই করে ডিএসই।

জাতিসংঘের এসএসই উদ্যোগ বিশ্বের ৭৫টি স্টক এক্সচেঞ্জকে একত্রিত হয়ে তথ্য আদান প্রদান এবং পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতা ও স্বচ্ছতার উন্নয়নে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচারক কেএএম. মাজেদুর রহমান এ বিষয়ে জানান, এর মাধ্যমে দক্ষ ইএসজি (ইনভাইরনমেন্টাল, সোস্যাল ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স) প্রতিবেদক আসার সুযোগ তৈরি হবে। তাতে পুঁজিবাজারের স্টেকহোল্ডারগণ উপকৃত হবেন।

তিনি আরো বলেন, ডিএসই তার তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর ইএসজি ইস্যুতে স্বচ্ছতা ও কার্যক্রমের ব্যাপারে সচেতন। চলতি বছর থেকে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর দীর্ঘমেয়াদী টেকসই বিনিয়োগ এবং পরিবেশগত, সামাজিক ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স বিষয়ে কর্মশালা শুরু করেছি।

গত মে মাসে প্রায় ৩০টি তালিকাভুক্ত কোম্পানি নিয়ে আয়োজিত প্রথম কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে টেকসই প্রতিবেদন ও কর্পোরেট স্বচ্ছতার বিষয়ে প্রচন্ড আগ্রহ ছিল লক্ষণীয়। ডিএসই ও এসএসইর এই সহযোগিতা বাংলাদেশে টেকসই বিনিয়োগ ও প্রতিবেদন উন্নয়নে ইতিবাচক ফল বয়ে আনবে।

সাসটেইনেবল স্টক এক্সচেঞ্জ ইনিশিয়েটিভ জাতিসংঘের সমর্থিত সংস্থাসমূহ, স্টক এক্সচেঞ্জ সমূহ, বিনিয়োগকারী, কোম্পানি, নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও সরকারের মধ্যে অংশীদারিত্বের কাজ করছে। এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে ডিএসই তার তালিকাভুক্ত কোম্পানগুলোকে তাদের পরিবেশগত সামাজিক ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স কার্যক্রমে অবদান রাখতে ও প্রকাশ করতে উৎসাহিত করবে।

ডিএসই বিনিয়োগকারী কোম্পানি নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে সংলাপের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী ও টেকসই বিনিয়োগ এবং এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানীগুলোর উন্নত সামাজিক ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স প্রকাশনা ও কর্মক্ষমতার উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

প্রসঙ্গত, এসএসই বা সাসটেইনেবল স্টক এক্সচেঞ্জ এর লক্ষ্য হচ্ছে বিশ্বের স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর মধ্যে সংলাপের জন্য একটি কার্যকরী প্লাটফর্ম প্রদান করা। স্টক এক্সচেঞ্জগুলো বিনিয়োগকারী, নিয়ন্ত্রক সংস্থাসমূহ ও কোম্পানিগুলোর সঙ্গে কিভাবে একত্রে কাজ করতে পারে তা উদঘাটনের মাধ্যমে এসএসই টেকসই বিনিয়োগকে উৎসাহিত করে এবং একই সঙ্গে কর্পোরেট স্বচ্ছতা ও পরিবেশ, সমাজ ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স বিষয়ে কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে।