মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আরিফ

বৃহস্পতিবার, ২৮ জুন, ২০১৮ ১২:১৮:০৮ অপরাহ্ণ
0
83
সিলেট প্রতিনিধি:

ধানের শীষ প্রতীকে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফুল হক চৌধুরী। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সাথে নিয়ে সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশনারের অফিসে তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রিটার্নিং অফিসার আলিমুজ্জামানের নিকট এ মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি।

মনোনয়নপত্র জমাদানকালে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেন, জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামিম, সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি ডা. শাহরিয়ার হোসেইন প্রমুখ।

এসময় আগামী সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া প্রার্থনা করেন সাবেক এ মেয়র।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগে বেলা ১ টার দিকে মেয়র পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি।  স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় বরাবর সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে তিনি এ পদত্যাগপত্র জমা দেন। পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার আগে সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে দীর্ঘ বৈঠক করেন এবং তাদের কাছ থেকে বিদায় নেন আরিফুল হক চৌধুরী।

পরে হজরত শাহ জালাল (র:) এর দরগাহ মসজিদে জোহরের নামাজ আদায়ের পর মাজার জিয়ারত করে কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে নির্বাচন কমিশনারের অফিসে যান তিনি।

এর আগে গত ২০ জুন আরিফুল হক চৌধুরীসহ মোট ৬ জন বিএনপি থেকে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। মনোনয়নপত্র সংগ্রহের পর থেকেই মনোনয়ন প্রত্যাশী বাকি ৫ জনই তার বিরোধিতা করে আসছিলেন। এমনকি বিগত পাঁচ বছরে দলের প্রতি আনুগত্যতা ও মেয়র হিসেবে নিজের দায়িত্ব পালনের বিভিন্ন দিক নিয়েও সমালোচনা করে আসছিলেন তারা। কিন্তু সর্বশেষ আরিফেই আস্থা রাখলো কেন্দ্রীয় বিএনপি। তার হাতেই উঠলো ধানের শীষ প্রতীক।

গত ২৭ জুন বুধবার ঢাকার গুলশান কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় এবং সিলেটের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে আরিফুল হক চৌধুরীর নাম ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, সাবেক এ মেয়র ২০১৩ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দুইবারের নির্বাচিত মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে বিপুল ভোটে পরাজিত করেন আরিফুল হক চৌধুরী।  এরপর নব নির্বাচিত এ মেয়র দায়িত্বভার গ্রহণের পর সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায় দুই বছর কারাবরণ করে জামিনে বেরিয়ে এসে পুনরায় মেয়রের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।