নাটকীয় ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিদায়

শনিবার, ৩০ জুন, ২০১৮ ৪:১৩:২৬ অপরাহ্ণ
0
99

অনলাইন ডেস্ক:

আর্জেন্টিনাকে ৪-২ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স। টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচটির প্রথম দিকে কিছুটা খাপছাড়া খেলা খেললেও প্রথমার্ধের শেষ এবং দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে পরপর দুই গোল করে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু তাদের সেই আনন্দ ছিল ক্ষণস্থায়ী। পরপর দুই গোল করে ম্যাচ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় দিদিয়ের দেশমে’র শিষ্যরা। পরবর্তীতে এক গোল করে ব্যবধান কমালেও হার এড়াতে পারেনি আর্জেন্টিনা।
সমতা ফেরার কিছুক্ষণ পরেই ৬৪ মিনিট ও ৬৮ মিনিটে এমবাপ্পের জোড়া গোলে ৪-২ গোলে এগিয়ে ফ্রান্স। এরপর ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে আগুয়েরোর গোলে ব্যবধান কমায় আর্জেন্টিনা।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই মেসির পাসে গোল করে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে নিল ডিফেন্ডার মার্কেডো। কিন্তু বেশিক্ষণ এগিয়ে থাকতে পারেনি আর্জেন্টিনা। ম্যাচের ৫৭ তম মিনিটে পাভার্দের গোলে আবারো সমতায় ফ্রান্স।
এর আগে শুরুতে পিছিয়ে গেলেও প্রধমার্ধের আগেই আগেই ডি মারিয়ার দুর্দান্ত গোলে ১-১ সমতায় ফিরে প্রথমার্ধ শেষ করেছে গিয়েছে আর্জেন্টিনা। এর আগে রোহোর ফাউলে ম্যাচের ১৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করেন ফ্রান্সের অ্যান্তোনি গ্রিজম্যান।
খেলা শুরু হতেই আর্জেন্টিনাএ চেপে ধরেছিল ফ্রান্স। প্রথম ৩০ মিনিটেই ফ্রান্সের দখলে ছিল ৭৫ শতাংশ। ম্যাচের ১৩ তম মিনিটে গ্রিজম্যানের দুর্দান্ত ফ্রি কিক গোলবারে লেগে ফিরে আসে। নাটকীয়তায় ভরা ম্যাচটির ১৩ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাক করে আর্জেন্টিনার আক্রমণভাগকে একরকম বোকা বানিয়েই বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়েন পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। দুরন্ত গতির এমবাপ্পেকে আটকাতে না পেরে ডি বক্সের মধ্যেই তাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো। পেনাল্টির বাঁশি বাজানোর সাথে সাথে রোহোকে হলুদ কার্ডও দেখান রেফারি। পেনাল্টি কিক থেকে গোল করে ফ্রান্সকে এগিয়ে নেন গ্রিজম্যান। এরপর কিছুটা মরিয়া হয়ে খেলতে শুরু করলেও সুবিধা করতে পারছিল না আর্জেন্টিনা। ম্যাচের ৪১তম মিনিটে ফ্রান্সের রক্ষণভাগের কিছুটা হেঁয়ালিপনা এবং কিছুটা ভাগ্যের সহায়তায় এভার বানেগার পাস থেকে বল পেয়ে যান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। সুযোগ পেয়েই ডি বক্সের বেশ খানিকটা বাইরে থেকে দুর্দান্ত শটে গোল করে আর্জেন্টিনাকে সমতায় ফেরান তিনি।
পরবর্তীতে ১৯ মিনিটে আবারও বিপজ্জনক জায়গায় আর্জেন্টিনার ফাউলের শিকার হন এমবাপ্পে। এবার একেবারে ডিবক্সের ঠিক বাইরে তাকে ফেলে দেন তাগলিয়াফিকো। ফাউল থেকে পাওয়া পগবার ফ্রি কিক ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়।
বিরতির ঠিক আগে ম্যাচের ৪১ তম মিনিটে গোলপোস্ট থেকে প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে বাঁকানো শটে আর্জেন্টিনাকে সমতায় তুলেন ডি মারিয়া।
নকআউটের পরীক্ষায় আজ আর্জেন্টিনার শুরুর একাদশে জায়গা হয়নি সার্জিও আগুয়েরো ও গঞ্জালো হিগুয়েনের। আক্রমণভাগে লিওনেল মেসি ও আনহেল দি মারিয়ার সঙ্গী ক্রিস্তিয়ান পাভোন।
ডেনমার্কের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ছয় পরিবর্তন আনা ফ্রান্স ফিরিয়েছে উগো লরিস, পল পগবা, কিলিয়ান এমবাপে, সামুয়েল উমতিতি, বাঁজামাঁ পাভার্দ ও ব্লেইস মাতুইদিকে।
আর্জেন্টিনা:
ফ্রাঙ্কো আরমানি, মার্কোস রোহো, নিকোলাস ওতামেন্দি, নিকোলাস তাগলিয়াফিকো, গাব্রিয়েল মের্কাদো, হাভিয়ের মাসচেরানো, এভার বানেগা, এনসো পেরেস, লিওনেল মেসি, আনহেল দি মারিয়া, ক্রিস্তিয়ান পাভোন।
ফ্রান্স:
উগো লরিস, লুকা এরনঁদেজ, রাফায়েল ভারান, সামুয়েল উমতিতি, বাঁজামাঁ পাভার্দ, পল পগবা, এনগোলা কঁতে, ব্লেইস মাতুইদি, অলিভিয়ে জিরুদ, অঁতোয়ান গ্রিজমান, কিলিয়ান এমবাপে।