বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে গোয়েন্দা প্রতিবেদন নিয়ে ১৪ খণ্ডের বই

শনিবার, ৭ জুলাই, ২০১৮ ১:১৮:১৯ অপরাহ্ণ
0
147
bdj
নিজস্ব প্রতিবেদক:

১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে তৎকালীন গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর (আইবি) ৪৭টি রিপোর্টের ফাইল থেকে ১৪ খণ্ডে বই প্রকাশ করার কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। শনিবার গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দেয়া ভাষণে তিনি এ তথ্য জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে করা গোয়েন্দা সংস্থার ৪৭টি ফাইল উদ্ধার করা হয়েছে। এই ফাইলগুলোর তথ্যাবলী বই আকারে প্রকাশ করা হবে।’

এসময় তিনি বলেন, ‘মাত্র একজন নেতার বিরুদ্ধে ৪৭টি ফাইল হয়েছে। এই ফাইলগুলো রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এসবি থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রায় ৪০ হাজার পাতার এই ফাইলগুলো ১৪টি ভলিউমে প্রকাশ করা হবে।’

ফাইলগুলোর তথ্য প্রকাশের ব্যাপারে তিনি আরও জানান, ‘এগুলো রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় অবমুক্ত করার আইন রয়েছে। ইতোমধ্যে মন্ত্রিসভার বৈঠকে অবমুক্ত করার অনুমতি নেওয়া হয়েছে।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বিভিন্ন জেলায় নেতাকর্মীদের যেসব চিঠি লিখেছেন সেগুলোও আছে এসব ফাইলে। এগুলো প্রকাশ করা হলে বহু তথ্য জানা যাবে।’

এসব নথি প্রকাশ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এগুলো প্রকাশের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস, বাংলাদেশের ইতিহাস ও আওয়ামী লীগের ইতিহাস সব জানা যাবে। এগুলো আওয়ামী লীগের জন্য, জনগণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাস।’

বই প্রকাশের কাজ এগিয়ে গেছে জানিয়ে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত যেসব ফাইল রয়েছে, ইতোমধ্যে তা ছাপা হয়ে গেছে।’

বঙ্গবন্ধু ডায়েরি লিখতেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই ডায়েরির দুইটি খাতা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। অনেক খোঁজাখুঁজির পর একটি খাতা আমরা পেয়েছি। আরেকটি খাতা, সেটাও এতো বছর পরে এসবির লোকেরা আমাকে খুঁজে বের করে দিয়েছে।’

বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদ, রংপুর, খুলনা, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের অধীন প্রতিটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত দলীয় চেয়ারম্যান এবং মহানগরের অধীন সংগঠনের প্রতিটি ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, দলীয় নির্বাচিত কাউন্সিলর এবং জেলা পরিষদের নির্বাচিত দলীয় সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা।