বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন

শনিবার, ৭ জুলাই, ২০১৮ ১:৫২:২৮ অপরাহ্ণ
0
107
 নিজস্ব প্রতিবেদক:

অনেক জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে দেশের আইনজীবীদের নিয়ন্ত্রক ও সনদদানকারী একমাত্র সংস্থা বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পাচ্ছেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন।

তিনি সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক। বার কাউন্সিলের ফাইন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান শ ম রেজাউল করিম বার ভবনের সম্মেলন কক্ষে সাধারণ আইনজীবীদের সামনে ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের নাম ঘোষণা করেন।

শনিবার দুপুরে বার কাউন্সিল ভবনে সাধারণ সভা শেষে প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে সিনিয়র এই আইনজীবীর নাম ঘোষণা করা হয় বলে জাগো নিউজকে জানান আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মোখলেসুর রহমান বাদল।

৫০ হাজার আইনজীবীর এই সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুল বাসেত মজুমদার।

তিন বছর মেয়াদে ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। এর আগের মেয়াদে আইনজীবীদের এই সংস্থায় গত তিন বছর যাবৎ ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন আব্দুল বাসেত মজুমদার।

অ্যাডভোকেট মো. মোখলেসুর রহমান আরও জানান, এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান সিনিয়র আইনজীবী সৈয়দ রেজাউর রহমান, ফাইন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান শ ম রেজাউল করিম ও মানবাধিকার ও লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যার মো. মোখলেসুর রহমানকে বার কাউন্সিলের এক্সিকিউটিভ মেম্বার নির্বাচিত করা হয়েছে ।

এবারের বার কাউন্সিলের নির্বাচনে ১৪ পদের মধ্যে ১২টিতে জয় পেয়েছে সরকার সমর্থকরা। আর বিএনপি সমর্থিতরা পেয়েছেন দুটি পদ।

সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে আওয়ামীলীগ সমর্থিত আইনজীবীদের মধ্য থেকে ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনকে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার ইঙ্গিত ছিল বলে জানা গেছে। আওয়ামী লীগপন্থী সুপ্রিমকোর্টের বেশ কয়েকজন আইনজীবী এই তথ্য জানিয়েছেন।

Yousuf

গত ১৪ মে সারা নির্বাচনের পর থেকে ভাইস চেয়ারম্যান পদের জন্য আলোচনায় ছিলেন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতিতে সভাপতি-সম্পাদকসহ বিভিন্ন পদে নির্বাচিত বাসেত মজুমদার। বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান পদে আরও আলোচনায় ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ রেজাউর রহমান। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলি রেজাউর রহমান। তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনিও বার কাউন্সিলে একাধিকবারের নির্বাচিত সদস্য।

সারা দেশের আইনজীবীদের নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ বার কাউন্সিল। প্রতি তিন বছর পর পর স্বায়ত্তশাসিত এ প্রতিষ্ঠানটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বার কাউন্সিলের বিধি অনুযায়ী এটি পরিচালিত হয় ১৫ সদস্যের কমিটি দিয়ে। পদাধিকারবলে চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনীত হন বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল। এই পদটি ব্যতীত নির্বাচিত ১৪ সদস্যের মধ্যে থেকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ও মতামতের ভিত্তিতে একজনকে ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়।

বাংলাদেশ লিগ্যাল প্র্যাকটিশনার্স অ্যান্ড বার কাউন্সিল অর্ডার ১৯৭২ অনুযায়ী নির্বাচনের ফলাফল এখন গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়েছে। ফলাফল ঘোষণার পর নবনির্বাচিত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হলো আজ শনিবার।

গত ১৪ মে বার কাউন্সিলের নির্বাচনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ৫০ হাজার ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের পর গত ২৬ মে ভোটের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।