ন্যায় বিচার নিয়ে হতাশায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মান্নান 

শুক্রবার, ১৩ জুলাই, ২০১৮ ১২:৩১:৫১ অপরাহ্ণ
0
76

 ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

থ্রী হুইলার (গাগলু) স্ট্যান্ডের টোলের টাকার জের ধরেই ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান খুন হওয়ার এক বছর পেরিয়ে গেলেও আইনশৃংঙ্খলাবাহিনী এখন পর্যন্ত মামলার চার্জশীট দাখিল করেনি। ফলে ন্যায় বিচায় নিয়ে হতাশায় দিনপার করছে নিহত মান্নানের স্ত্রী, সন্তান ও পরিবারের সদস্যরা।

এ ছাড়া হত্যাকাণ্ডের সাথে সরাসরি জড়িত পৌর ১০ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শান্ত ও সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজিব দত্ত জেলহাজতে রয়েছেন।

অপরদিকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা আব্দুল মান্নান খুন হওয়ার পর ঠাকুরগাঁও-১ আসনের এমপি ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোল্লা আবু কাওসার নিহত মান্নানের স্ত্রীকে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থার আশ্বাস প্রদান করলেও তা বাস্তবায়ন করেনি বলে জানা গেছে।

নিহতের স্ত্রী জেমসিন আক্তার জানান, তার স্বামীর আয়ে সংসার চলত। গত ১ বছর যাবত দুই কন্যা শিশুকে নিয়ে কষ্ট করে দিনপার করতে হচ্ছে। খুন হওয়ায় পরিবারের রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় জেসমিন আক্তার দুই সন্তান ও শাশুড়িকে নিয়ে দুরবস্থার মধ্যে পড়েছেন। তিনি স্বামীর হত্যাকারীদের দ্রুত ফাঁসি চান।

মান্নানের বড় ভাই আবু আলী জানান, এক বছর পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত চাঞ্চল্যকর মান্নান হত্যার চার্জশীট দাখিল করেনি অজ্ঞাত কারণে। হত্যাকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলাটি ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। এ দিকে মামলা তুলে নিয়ে সমঝোতার জন্য চাপ সৃষ্টি করছে বলে বাদী আবু আলী অভিযোগ করেন।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শাহনেওয়াজ কাদির শাকিল চৌধুরী জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা আব্দুল মান্নান খুন হওয়ার ১ বছর পার হয়ে প্রকৃত আসামি গ্রেপ্তারের পরেও পুলিশ এখন পর্যন্ত আদালতে চার্জশীট দাখিল কেন করছে না তা সকলের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা সকলেই চাই এই রকম একটি চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনা উচিত। না হলে সমাজে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা হবে না।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের (ওসি অপারেশন) কফিল উদ্দিন জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা মান্নান হত্যাকাণ্ড ঠাকুরগাঁওয়ে চাঞ্চল্যকর। মামলায় আসামিদের চার্জশীট তৈরি শেষের দিকে। আদালতে দ্রুত প্রকৃত অভিযুক্তদের নামে চার্জশীট দাখিল করা হবে।

ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাত আহমেদ জানান, মান্নান হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ আসামিদের তাৎক্ষণিক দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। যেহেতু চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের মামলা তাই একটু সময় নেয়া হচ্ছে। শীগগিরই সকল দিক বিবেচনা করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করা হবে। প্রকৃত খুনিরা কেউ ছাড় পাবেনা।

প্রসঙ্গত, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজীব দত্তের সঙ্গে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নানের বিরোধ ছিল। এর জের ধরে গত বছর ১১ জুলাই দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে শহরের মুন্সিরহাট এলাকায় আব্দুল মান্নানকে ছুরিকাঘাত করেন সজীব দত্ত ও শান্ত। পরে মান্নানকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় মান্নানের বড় ভাই আবু আলী বাদী হয়ে সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজিব দত্ত ও পৌরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শান্তর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ হত্যাকাণ্ডের পরে আসামি সজিব দত্ত, তার ভাই পিন্টু দত্ত, মেঝো ভাই জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ দত্ত সমীর, আসামি শান্ত’র ভাই রতনকে গ্রেপ্তার করলেও দু’জন বাদে সকলে জামিনে রয়েছেন।

অপরদিকে জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা মান্নান হত্যার ন্যায় বিচার ও প্রকৃত খুনিদের নামে আদালতে চার্জশীট দাখিলের জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিকট আহবান জানান।