দেখার কেউ নেই!!!

রবিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১১:২১:২৩ পূর্বাহ্ণ
0
83
ফখরুল ইসলাম,নরসিংদী:
নরসিংদীর জেলার পলাশ এবং ঘোড়াশাল উপজেলার প্রাণ কেন্দ্র দিয়ে বয়ে গেছে শীতলহ্মা নদী।
এই শীতলহ্মা নদীকে কেন্দ্র করে পলাশ এবং ঘোড়াশালের ব্যাবসা বানিজ্য আবর্তিত।
শীতলহ্মার দুই পাশ কে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে বহু নামিদামী প্রতিষ্ঠান এবং কলকারখানা।।কিন্তু দুঃখের বিষয় যেই শীতলহ্মার আর্শীবাদে তাদের ব্যাবসা বানিজ্য আবর্তীত, সেই শীতলহ্মা তাদের দ্বারা প্রতিনিয়ত দূষণ এবং দখলের স্বীকার।
ঘোড়াশাল যেহেতু বানিজ্যিক এলাকা তাই পুরো বাজারের সকল বর্জ কোন রকম পরিশোধন ছাড়াই প্রতিনিয়ত নদীতে ফেলা হচ্ছে। এই কারণে নদী দূর্ষণের স্বীকার হচ্ছে। সে তার নব্যতা হারাচ্ছে।।
তাছাড়া নদীর চারপাশে গড়ে উঠা কল-কারখানায় প্রতিনিয়ত তাদের বিষাক্ত বর্য-পদার্থ কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে ফেলা হচ্ছে এই নদীতে।। এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে এক সময় এই নদী এলাকার লোকজনের দৈনন্দিন নিত্যপ্রয়োজনীয় পানির চাহিদা মেটাতো।
তারা এই পানি দিয়ে তাদের রান্নার কাজ সহ সব কাজ সম্পন্ন করত। কিন্তু এখন এই নদীর পানি থেকে দূর্গন্ধ ছড়ায়। ব্যাবহার তো দূরের কথা এই নদীর দুপাশে যারা বসবাস করে পানির দুর্গন্ধে তাদের স্বাভাবিক জীবনযাএা ব্যাহত হচ্ছে।
এখানেই শেষ নয় কিছু কম্পানি অভিনব পদ্ধতিতে নদী দখল করছে। যা একটি উদাহরণ এএমসিএল কোম্পানি। তারা নদীর কিনারায় জাহায আকৃতির একটি স্টোর স্হাপন করেছে। দূর থেকে দেখতে মনে হয় অবিকল জাহাযের মতো। কিন্তুু বাস্তবে তা একটি স্হির স্টোর।
এলাকাবাসী এই সব অনিয়ম এবং দখলধারীত্বের কবল থেকে মুক্তি চায়। তারা তাদের  শীতলহ্মা কে দেখতে চায় আগের রুপে।