প্রচ্ছদ

বগুড়ায় বিষাক্ত মদ বিক্রি, গ্রেপ্তার ৪

০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০৫

যুগের কন্ঠ ২৪ ডট কম
::বগুড়া প্রতিনিধি::

বগুড়া শহরে বিয়েবাড়ি অনুষ্ঠানে বিষাক্ত মদ্যপানে ১৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ বলছে, রেকটিফাইড স্পিরিট পানে ৮ জনের মৃত্যুর জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান চলছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে হোমিও ওষুধ প্রস্তুতকারক একটি প্রতিষ্ঠানের মালিকসহ চার জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বুধবার বেলা ১২টায় পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়ে বলেন, পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে। রেকটিফাইড স্পিরিটের সঙ্গে মিথানল মেশানোর কারণেই তা বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। যা পান করে এ পর্যন্ত মোট ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত চারজন হলেন- শহরের ফুলবাড়ী এলাকার পারুল হোমিও ল্যাবরেটরিজের স্বত্বাধিকারী নুরুন্নবী ওরফে নুরনবী (৫৮), শহরের গালাপট্টি এলাকার মুন হোমিও হলের স্বত্বাধিকারী আব্দুল খালেক (৫৫), করতোয়া হোমিও হলের স্বত্বাধিকারী শহিদুল আলম সবুর (৫৫) ও হাসান হোমিও হলের কর্মচারী আবু জুয়েল।

বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে বিষাক্ত মদ উৎপাদন এবং বিক্রির অভিযোগ রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত রোববার দিবাগত রাতে শহরের পুরান বগুড়া এলাকায় একটি বিয়ের বাড়িতে মদপানের পর বেশ কয়েকজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নেয়ার পথে একজন এবং পরদিন ভোরে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে আরেকজনের মৃত্যু হয়।

অপরদিকে রোববার দিবাগত রাতেই শহরের কালিতলা এলাকায় এবং ভবের বাজার এলাকা মদপান করে আরও চারজন জনের মৃত্যু হয়।

এরপর বিষাক্ত মদপানে বগুড়ার কাহালু এবং শাজাহানপুরে আরও চারজনসহ মঙ্গলবার দিবাগত রাত পর্যন্ত মোট ১৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।

জানা যায়, বিষাক্ত মদ্যপানে মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যরা গোপনে লাশ দাফন করেছেন এবং মদপানে মৃত্যুর বিষয়টি অস্বীকার করায় পুলিশের খাতায় মৃত্যুর সংখ্যা কম হয়েছে।

Shares