প্রচ্ছদ

শাহবাগে ৩৫ লাখ টাকা ছিনতাই, গ্রেপ্তার ৬

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:২৮

যুগের কন্ঠ ২৪ ডট কম
রাজধানীর শাহবাগে ৩৫ লাখ টাকার ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেপ্তার ছয়জন। ছবি সংগৃহীত
::নিজস্ব প্রতিবেদক::

রাজধানীর শাহবাগে টিএন্ডটি এক্সচেঞ্জ এলাকায় পুরান ঢাকার ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশের রমনা বিভাগ।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত দুটি চাপাতি, দুটি চাকু, একটি এন্টিকাটার, একটি হাতুড়ি ও ছিনিয়ে নেয়া দুই লাখ ৫০ হাজার টকা উদ্ধার করা হয়।

শনিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার। তিনি বলেন, গত ১০ ও ১১ ফেব্রুয়ারি ধারাবাহিক অভিযানে ঢাকা ও আশপাশের জেলা থেকে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলো- মাজহারুল ইসলাম ওরফে রাকিব, মো. জহিরুল তালুকদার, আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে খোকা মো. সেলিম ওরফে ল্যাংরা সেলিম, মো. লালন ও মো. সেলিম মিয়া।

হাফিজ আক্তার বলেন, গত ৭ ফেব্রুয়ারি পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম রাজধানীর তাঁতিবাজার রোমানের অফিস থেকে একটি ব্যাগের মধ্যে ৩৫ লাখ টাকা নিয়ে ব্যাংকে জমা করার উদ্দেশ্যে রিকশায় করে রওনা হন। আনুমানিক বেলা আড়াইটা থেকে তিনটার মধ্যে শাহবাগ থানার টিএন্ডটি এক্সচেঞ্জের পূর্বপাশে রাস্তার উপর টেম্পুস্ট্যান্ডে আসার পর অজ্ঞাতনামা ৮-১০ জন রিকশার গতিরোধ করে তাকে ঘিরে ধরে।

এরপর কয়েকজন শহিদুলকে উপর্যুপরি কিল, ঘুষি, থাপ্পড় ও চাকু দিয়ে তার ডান চোখের নিচে গুরুতর আঘাত করে তার কাছে থাকা ৩৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এই ঘটনায় শাহবাগ থানায় ৮ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা করা হয়। ঘটনার পর থেকেই ডিবির রমনা টিম অভিযান শুরু করে ছিনতাইকারীদের শনাক্ত করে। এতে কারা জড়িত, কে খবর দিয়েছে সবই ডিবির নজরে আছে। অতি শিগগিরই ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তার করা হবে।

ছিনতাইয়ের বাকি টাকাগুলো ছিনতাই চক্রের অন্য সদস্যরা ভাগ করে নিয়েছে। তাদের গ্রেপ্তার করা হলেই বাকি টাকাও উদ্ধার করা হবে।

ডিএমপি পুলিশ ছিনতাইয়ের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযানের পর কীভাবে এসব ঘটনা ঘটে যাচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে এ পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। গত কয়েকদিনে শতাধিক ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কোনো ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটলে থানায় অভিযোগ করলে এ ব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।

Shares