প্রচ্ছদ

সুতা লুট করতেই কাভার্ডভ্যান চালক খুন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:৫১

যুগের কন্ঠ ২৪ ডট কম
::গাজীপুর প্রতিনিধি::

সাড়ে ১৩ লাখ টাকার সুতা লুট করতেই কাভার্ডভ্যান চালককে খুন করা হয়েছে। শনিবার সকালে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সের সভাকক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ওই তথ্য জানানো হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত দুই ছিনতাইকারীকেও গ্রেপ্তারসহ লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করেছে। পুলিশ কাভার্ড ভ্যানসহ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- রংপুর জেলার কোতয়ালী থানার দেওয়ান টুলি এলাকার মো. মনোয়ার হোসেনের ছেলে মো. নাজমুল হোসেন (২২) এবং গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার আটাবহ এলাকার মানিক চন্দ্র সরকারের ছেলে গকুল চন্দ্র সরকার ওরফে বকুল সরকার (৩০)।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ হেড কোয়ার্টারের সভাকক্ষে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে উপ-পুলিশ কমিশনার মো. জাকির হাসান জানান, বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে সদর থানা পুলিশ ন্যাশনাল পার্কের ৫নং গেইট সংলগ্ন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশ থেকে একটি অজ্ঞাত গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে। পরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। লাশের খবর পেয়ে মর্গে গিয়ে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তির স্ত্রী সাহেদা বেগম স্বামীর লাশ সনাক্ত করেন।

তিনি জানান, লাশটি তার স্বামী ও কাভার্ডভ্যান চালক মুন্নাফ সরকারের (৫০)। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার হোমনা থানার হরিপুর এলাকায় হলেও থাকেন গাজীপুর মহানগরের কাশিমপুর এলাকায় এবং কাভার্ডভ্যান চালান। তিনি বুধবার ভোরে নারায়ণগঞ্জ যাবে বলে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন।

এ ব্যাপারে সাহেদা বেগম সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। পরে পুলিশ তদন্তে নেমে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে মুন্নাফ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানার নান্নু স্পিনিং মিল থেকে ১২২ বস্তা সুতা নিয়ে গাজীপুরের চন্দ্রা-চৌরাস্তার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন।

পথিমধ্যে পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে আসামিরা গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় কাভার্ডভ্যানে ওঠে। এরপর মন্নাফকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা গেটে হত্যা করে এবং লাশটি ন্যাশনাল পার্কের ৫নং গেইট এলাকায় ফেলে রেখে কাভার্ড ভ্যানটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ঢাকার ধামরাই এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাতে কাভার্ড ভ্যানটি উদ্ধার করে। পরের দিন শুক্রবার মধ্যরাতে পুলিশ কাশিমপুর থানাধীন জিরানী এলাকা থেকে আসামি গকুল চন্দ্র সরকারকে গ্রেপ্তার এবং তার হেফাজত থেকে লুণ্ঠিত ১৩ লাখ ৬৬ হাজার ৮শ টাকা মূল্যের ১২২ বস্তা সুতা উদ্ধার করে।

গকুলকে জিজ্ঞাসাবাদে তার দেয়া তথ্য মতে একই রাতে হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি নাজমুল হোসেনকে (২২) গ্রেপ্তার ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। আসামিরা হত্যাকাণ্ডে জড়িত বলে স্বীকার করেছে।

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত উপ-কমিশনার থোয়াই অং প্রত্ন মারমা, সদর থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম ও পরিদর্শক মো. জাহাঙ্গীর আলম।

Shares