ঢাবিতে ছাত্রদলের কর্মসূচিতে ছাত্রলীগের হামলা

যুগের কন্ঠ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১ জুন, ২০২১
আহত বেশ কয়েকজন।
::ঢাবি প্রতিনিধি::

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অসহায়দের মাঝে খাবার ও শিক্ষা উপরকরণ বিতরণ কর্মসূচিতে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনসহ ছাত্রদলের অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ছাত্রদল।

হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব আমান উল্লাহ আমান বলেন, ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাহাদৎবার্ষির্কী উপলক্ষে আজকে টিএসসিতে আমাদের খাদ্যসামগ্রী ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ কর্মসূচি ছিল। আমাদের নেতাকর্মীরা টিএসসিতে যাওয়ামাত্রই ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান পিকুলের নেতৃত্বে আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। এতে আমাদের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ প্রায় ২০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ৬ জন ঢাকা মেডিকেলের ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করা হয়েছে।’

হামলায় আহতদের মধ্যে কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, ঢাবি ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আখতার হোসেন, জহির উদ্দিন আহমেদ, আবু জাফর, শাহজাহান শাওন, মোস্তাফিজুর রহমান রুবেল, মিয়া মো. রাসেল, যুগ্ম-আহ্বায়ক, আরিফুল ইসলাম, ঢাবি ছাত্রদলের সদস্য মো. তরিকুল ইসলাম তারিক, রিয়াজ আনোয়ার হোসেন, ফারহান আরিফ, রাজু আহম্মদ, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখার সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান খান, মাস্টারদা সূর্যসেন হল শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল হাসান রয়েছেন বলে জানান তিনি।

তবে হামলার ঘটনা অস্বীকার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমরা যেটি জেনেছি, সম্প্রতি ছাত্রদলের কমিটি গঠন ও কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ছাত্রদলের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও উপদলীয় তৎপরতা চলছে। সেটির বহিঃপ্রকাশ হিসেবে তারা আজকে নিজেদের মধ্যে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মঞ্চস্থ করেছে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, আমরা জেনেছি, টিএসসিতে একটা ঘটনা ঘটেছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে বলা হয়েছে, কারা এটা করেছে, তা দ্রুত খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিতে। আর টিএসসি কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানতে পারলাম, ওখানে কারও আনুষ্ঠানিকতা ছিল না। কোনো পারমিশনও নেওয়া হয়নি। এই করোনাকালে বন্ধ ক্যাম্পাসে কেউ হুট করে এসে বিশৃঙ্খলা করলে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সেটা যেই করুক।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..