১ লাখ ৯ হাজার ৫শ প্রান্তিক কৃষককে সরকারী প্রনোদনা বিতরন কার্যক্রম চলছে

কামাল উদ্দিন টগর,নওগাঁ;
  • প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০২১, ৩:২৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ মাস আগে

ছবি সংগৃহীত

চলতি রািব/২০২১-২২ মৌসুমে নওগাঁ জেলায় মোট ১ লাখ ৯ হাজার ৫শ কৃষককে বিভিন্ন ফসলের অনুকুলে সরকারী প্রনোদনা বিতরন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

প্রান্তিক কৃষকদের প্রত্যেককে ১ বিঘা জমির বিপরীতে এই প্রনোদনা বিতরন করা হচ্ছে। কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর নওগাঁ’র উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. শামসুল ওয়াদুদ জানিয়েছেন এসব কৃষকদের বিভিন্ন ফসলের বীজ ও প্রয়োজনীয় দুই প্রকারের সার বিতরন করা হচ্ছে।

সূত্রমতে বিতরনকৃত প্রনোদনার আওতায় রয়েছে ৮ হাজার জন গমচাষী, ১০ হাজার জন ভুট্টাচাষী, ১৫ হাজার জন সরিষাচাষী, ২ হাজার জন সূর্যমুখীচাষী, ৪ হাজার জন মসুরচাষী, ৪ হাজার জন খেসারীচাষী, ১ হাজার জন চিনাবাদাম চাষী, ৫শ জন মুগচাষী, ১ হাজার জন পেঁয়াজচাষী এবং ৬৪ হাজার জন বোরোচাষী। বোরোচাষীদের মধ্যে ৪৪ হাজার জন কৃষককে হাইব্রীড ধান চাষের জন্য এবং ২০ হাজার জন কৃষককে উন্নত ফলনশীল উফশী জাতের ধান চাষের জন্য।

বিভিন্ন ফসলের অনুকুলে প্রদত্ত প্রনোদনা প্রদানের পরিমান হচ্ছে গমচাষীদের প্রত্যেককে ২০ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার। ভুট্টাচাষীদের প্রত্যেককে ২ কেজি বীজ, ২০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার। সরিষা চাষীদের প্রত্যেককে ১ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার। মসুরচাষীদের প্রত্যেককে ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার। খেসারীচাষীদের প্রত্যেককে ৮ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার।

চিনাবাদাম চাষীদের প্রত্যেককে ১০ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার। মুগচাষীদের প্রত্যেককে ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার, পেঁয়াজচাষীদের প্রত্যেককে ১ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার। বোরো ধানের ক্ষেত্রে হাইব্রীডচাষীদের কেবলমাত্র ২ কেজি করে বীজ এবং উপশী জাতের চাষীদের ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার।

কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. শামসুল ওয়াদুদ বলেছেন কৃষি এবং কৃষকদের উন্নয়নে ধারাবাহিক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সরকার সারাদেশে বিপুল সংখ্যক কৃষকদের এসব প্রনোদনা দিয়ে আসছে। এতে দেশের প্রান্তিক কৃষকদের উন্নয়ন তরান্বিত হচ্ছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...