ঢাকা ০২:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করা সেই সম্পাদক গ্রেফতার!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১২:৫৭:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ জুন ২০২১
  • / 394

::নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি::
নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে বহুমুখী সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের মূলহোতা প্রদীপ চন্দ্র বর্মণকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। একই সঙ্গে মো. আনিসুর রহমান (৪৫) নামে তার এক সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১ জুন) ভোর সাড়ে ৫টায় র‌্যাব-১১ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার (৩১ মে) বিকেল ৩টায় সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানীনগর এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।এসময় তাদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার, দুইটি মোবাইল, ব্যানার, জীবনবৃত্তান্ত ফরম ও তালাশ নিউজ-৭৯ টিভি নামের আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বহুমুখী প্রতারক চক্রের মূলহোতা প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ ওয়াকিটকি সেট, মনোগ্রাম সম্বলিত জ্যাকেট ও হাতকড়া দেখিয়ে নিজেকে একাধারে ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থা’র চেয়ারম্যান, তালাশ নিউজ টিভি-৭৯ ও দৈনিক সত্যের সংগ্রাম পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।

তিনি ভুয়া আইডি কার্ড তৈরি করে ট্রাফিক পুলিশ ও যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে চাকরির আশ্বাস, তার কথিত টিভি চ্যানেল ও ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থার’ অন্যান্য সদস্যপদে এবং নিউজ চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে সরল বিশ্বাসী মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিতেন। পরবর্তীতে তার কাছে কেউ টাকা ফেরত চাইলে তার কথিত টর্চার সেলে নিয়ে গিয়ে তাদের অত্যাচারের হুমকি দিতেন।

প্রদীপ চন্দ্র নিজে এক সময় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী ছিলেন বলেও উল্লেখ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে। এতে আরও বলা হয়, ২০১৫ সালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করার অপরাধে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া অবৈধভাবে ওয়াকিটকি সেট ব্যবহার ও বিতরণ করার অপরাধে তার বিরুদ্ধে ২০১৯ সালে টাঙ্গাইলের কালিহাতি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

প্রতারক প্রদীপের প্রধান সহযোগী আনিসুর রহমান নিজে মূলত একজন রিকশাচালক বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। তিনি নতুন সদস্য সংগ্রহের কাজে তাকে বিভিন্নভাবে সহায়তা করে আসছিলেন। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নারায়ণগঞ্জে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করা সেই সম্পাদক গ্রেফতার!

আপডেট : ১২:৫৭:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ জুন ২০২১

::নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি::
নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে বহুমুখী সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের মূলহোতা প্রদীপ চন্দ্র বর্মণকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। একই সঙ্গে মো. আনিসুর রহমান (৪৫) নামে তার এক সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১ জুন) ভোর সাড়ে ৫টায় র‌্যাব-১১ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার (৩১ মে) বিকেল ৩টায় সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানীনগর এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।এসময় তাদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার, দুইটি মোবাইল, ব্যানার, জীবনবৃত্তান্ত ফরম ও তালাশ নিউজ-৭৯ টিভি নামের আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বহুমুখী প্রতারক চক্রের মূলহোতা প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ ওয়াকিটকি সেট, মনোগ্রাম সম্বলিত জ্যাকেট ও হাতকড়া দেখিয়ে নিজেকে একাধারে ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থা’র চেয়ারম্যান, তালাশ নিউজ টিভি-৭৯ ও দৈনিক সত্যের সংগ্রাম পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।

তিনি ভুয়া আইডি কার্ড তৈরি করে ট্রাফিক পুলিশ ও যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে চাকরির আশ্বাস, তার কথিত টিভি চ্যানেল ও ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থার’ অন্যান্য সদস্যপদে এবং নিউজ চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে সরল বিশ্বাসী মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিতেন। পরবর্তীতে তার কাছে কেউ টাকা ফেরত চাইলে তার কথিত টর্চার সেলে নিয়ে গিয়ে তাদের অত্যাচারের হুমকি দিতেন।

প্রদীপ চন্দ্র নিজে এক সময় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী ছিলেন বলেও উল্লেখ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে। এতে আরও বলা হয়, ২০১৫ সালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করার অপরাধে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া অবৈধভাবে ওয়াকিটকি সেট ব্যবহার ও বিতরণ করার অপরাধে তার বিরুদ্ধে ২০১৯ সালে টাঙ্গাইলের কালিহাতি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

প্রতারক প্রদীপের প্রধান সহযোগী আনিসুর রহমান নিজে মূলত একজন রিকশাচালক বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। তিনি নতুন সদস্য সংগ্রহের কাজে তাকে বিভিন্নভাবে সহায়তা করে আসছিলেন। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।