ঢাকা ০৯:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুবি শিক্ষার্থীদের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ, ৮ কিলোমিটার যানজট

কুবি প্রতিনিধি
  • আপডেট : ০৭:৫৭:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪
  • / 51
কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এতে রাস্তার দুই পাশে অন্তত ৮ কিলোমিটার যানযটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে আছে যাত্রী, পথচারীরা।
রবিবার (৭ জুলাই) দুপুর ৪ টা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এখনো চলছে।
সারাদেশে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই অবরোধে অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। ২০১৮ সালে কোটা বাতিল করে দেওয়া প্রজ্ঞাপন হাইকোর্ট কর্তৃক অবৈধ ঘোষণার প্রতিবাদে ও প্রজ্ঞাপন পুনর্বহালের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীরা অবরোধ করছে। এরই অংশ হিসেবে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা।
কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী দাউদকান্দি এক্সপ্রেস বাসের চালক শাহজাহান মিয়া বলেন,  ‘গত বৃহস্পতিবারের অবরোধেও আমি আটকে ছিলাম। আজকেও আমি জ্যামে আটকে আছি। যাত্রীরা সব নেমে যাচ্ছে, কয়েকঘন্টা হলো তবুও অবরোধ শেষ হচ্ছে না।’
চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী মারসা পরিবহন বাসের চালক মো.  জলিল বলেন, ‘অনেক দূরের পথ চট্রগ্রাম থেকে ঢাকা যাচ্ছি মাঝপথে আটকে গেলাম, জ্যাম অনেকক্ষণ থেকে আছে আর কতক্ষণ থাকে কে জানে?’
মারসা পরিবহন বাসের যাত্রী সাইফুল ইসলাম  বলেন, ‘ঢাকা যাচ্ছিলাম গুরুত্বপূর্ণ কাজে আড়াই ঘন্টা ধরে এখানে আটকে আছি। প্রশাসনের কোন ভূমিকাও দেখছি না। খুব ভোগান্তিতে আছি আমরা।’
ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার মজুমদার জানান অবরোধের কারনে মহাসড়কে যানযটের সৃষ্টি হয়েছে। অবরোধ সড়ে গেলে আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে যানযট নিরসনের চেষ্টা করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কুবি শিক্ষার্থীদের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ, ৮ কিলোমিটার যানজট

আপডেট : ০৭:৫৭:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪
কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এতে রাস্তার দুই পাশে অন্তত ৮ কিলোমিটার যানযটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে আছে যাত্রী, পথচারীরা।
রবিবার (৭ জুলাই) দুপুর ৪ টা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এখনো চলছে।
সারাদেশে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই অবরোধে অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। ২০১৮ সালে কোটা বাতিল করে দেওয়া প্রজ্ঞাপন হাইকোর্ট কর্তৃক অবৈধ ঘোষণার প্রতিবাদে ও প্রজ্ঞাপন পুনর্বহালের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীরা অবরোধ করছে। এরই অংশ হিসেবে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা।
কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী দাউদকান্দি এক্সপ্রেস বাসের চালক শাহজাহান মিয়া বলেন,  ‘গত বৃহস্পতিবারের অবরোধেও আমি আটকে ছিলাম। আজকেও আমি জ্যামে আটকে আছি। যাত্রীরা সব নেমে যাচ্ছে, কয়েকঘন্টা হলো তবুও অবরোধ শেষ হচ্ছে না।’
চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী মারসা পরিবহন বাসের চালক মো.  জলিল বলেন, ‘অনেক দূরের পথ চট্রগ্রাম থেকে ঢাকা যাচ্ছি মাঝপথে আটকে গেলাম, জ্যাম অনেকক্ষণ থেকে আছে আর কতক্ষণ থাকে কে জানে?’
মারসা পরিবহন বাসের যাত্রী সাইফুল ইসলাম  বলেন, ‘ঢাকা যাচ্ছিলাম গুরুত্বপূর্ণ কাজে আড়াই ঘন্টা ধরে এখানে আটকে আছি। প্রশাসনের কোন ভূমিকাও দেখছি না। খুব ভোগান্তিতে আছি আমরা।’
ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার মজুমদার জানান অবরোধের কারনে মহাসড়কে যানযটের সৃষ্টি হয়েছে। অবরোধ সড়ে গেলে আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে যানযট নিরসনের চেষ্টা করবো।