ঢাকা ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিড র্টার্ম পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনে আজীবন বহিষ্কার ববি শিক্ষার্থী

ববি প্রতিনিধি
  • আপডেট : ০৬:৪৫:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / 32
মিডটার্ম পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন ও পরীক্ষা কক্ষে শিক্ষকের সাথে আশোভন আচরণের দায়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) এক শিক্ষার্থীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (৯ই জুলাই) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের একটি চিঠির মাধ্যমে বহিষ্কারের বিষয়টি জানানো হয় বহিষ্কৃত ঐ শিক্ষার্থীকে। বহিষ্কৃত ঐ শিক্ষার্থী হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী যাদব কুমার ঘোষ।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর সূত্রে জানা যায়, পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে এই প্রথম কোন শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ৯১তম একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে এই বহিষ্কারাদেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটি ঐ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ দেওয়ার সুপারিশ করেন। শৃঙ্খলা কমিটির সেই সুপারিশ অনুযায়ী বহিষ্কারাদেশ দিয়েছেন একাডেমিক কাউন্সিল। পরে সুপারিশটি ৮২তম সিন্ডিকেটে অনুমোদন দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বাংলা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, যাদব কুমার ঘোষ ৪র্থ বর্ষের দ্বিতীয় মিডটার্মে নকল দেখে লিখছিলেন। নকল দেখে লেখার সময়ে প্রধান কক্ষ পরিদর্শক শিক্ষক মো. সাকিবুল ইসলাম হাতেনাতে ধরে ফেলেন যাদবকে৷ এ সময় শিক্ষক তার থেকে উত্তরপত্র নিয়ে যেতে চাইলে, তিনি শিক্ষককে উত্তর পত্র না দিয়ে উল্টো শিক্ষকের হাত চেপে ধরেন এবং উত্তরপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন।
পরবর্তীতে, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক বিষয়টি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরকে অবহিত করেন। অতপর বিষয়টি শৃঙ্খলা কমিটির কাছে দেয়া হয় সুপারিশের জন্য। শৃঙ্খলা কমিটি শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ সুপারিশ করেন। এবং উক্ত সুপারিশটি একাডেমিক কাউন্সিলে উঠলে কাউন্সিলও ঐ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের সুপারিশ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মিড র্টার্ম পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনে আজীবন বহিষ্কার ববি শিক্ষার্থী

আপডেট : ০৬:৪৫:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
মিডটার্ম পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন ও পরীক্ষা কক্ষে শিক্ষকের সাথে আশোভন আচরণের দায়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) এক শিক্ষার্থীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (৯ই জুলাই) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের একটি চিঠির মাধ্যমে বহিষ্কারের বিষয়টি জানানো হয় বহিষ্কৃত ঐ শিক্ষার্থীকে। বহিষ্কৃত ঐ শিক্ষার্থী হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী যাদব কুমার ঘোষ।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর সূত্রে জানা যায়, পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে এই প্রথম কোন শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ৯১তম একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে এই বহিষ্কারাদেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটি ঐ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ দেওয়ার সুপারিশ করেন। শৃঙ্খলা কমিটির সেই সুপারিশ অনুযায়ী বহিষ্কারাদেশ দিয়েছেন একাডেমিক কাউন্সিল। পরে সুপারিশটি ৮২তম সিন্ডিকেটে অনুমোদন দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বাংলা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, যাদব কুমার ঘোষ ৪র্থ বর্ষের দ্বিতীয় মিডটার্মে নকল দেখে লিখছিলেন। নকল দেখে লেখার সময়ে প্রধান কক্ষ পরিদর্শক শিক্ষক মো. সাকিবুল ইসলাম হাতেনাতে ধরে ফেলেন যাদবকে৷ এ সময় শিক্ষক তার থেকে উত্তরপত্র নিয়ে যেতে চাইলে, তিনি শিক্ষককে উত্তর পত্র না দিয়ে উল্টো শিক্ষকের হাত চেপে ধরেন এবং উত্তরপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন।
পরবর্তীতে, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক বিষয়টি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরকে অবহিত করেন। অতপর বিষয়টি শৃঙ্খলা কমিটির কাছে দেয়া হয় সুপারিশের জন্য। শৃঙ্খলা কমিটি শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ সুপারিশ করেন। এবং উক্ত সুপারিশটি একাডেমিক কাউন্সিলে উঠলে কাউন্সিলও ঐ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের সুপারিশ করেন।