ঢাকা ০৪:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খুলনার ৩ থানায় এক সপ্তাহের কঠোর বিধি-নিষেধ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০১:৩২:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ জুন ২০২১
  • / 187

ছবি সংগৃহীত

::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::
খুলনার তিন থানা এলাকায় ১ সপ্তাহ কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বুধবার দুপুরে জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভায় সদর, সোনাডাঙা ও খালিশপুর থানা এলাকায় কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. কামাল হোসেন এবং খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন অনলাইনে যুক্ত ছিলেন।

সভায় বলা হয়, খুলনা লকডাউন করার কোনো প্রয়োজন নেই। তবে আগামী ৪ জুন থেকে খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা ও খালিশপুর থানা এলাকায় এক সপ্তাহ দোকানপাট বন্ধ রাখা হবে।

খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ইউসুফ আলী বলেন, আপাতত লকডাউনের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

খুলনা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মাদ বলেন, এক সপ্তাহের জন্য খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা এবং খালিশপুর থানা এলাকার কাঁচাবাজার ও ওষুধের দোকান ছাড়া অন্যসব দোকানপাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রয়োজনে পরবর্তীতে আরও কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সভায় সিটি মেয়র বলেন, সার্বিকভাবে করোনা নিয়ন্ত্রণে খুলনার স্বাস্থ্যবিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। সন্ধ্যার পর একাধিক লোকের জনসমাগম বন্ধ করতে হবে। তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং সর্বক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার করার নির্দেশনা দেন। এক্ষেত্রে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে মসজিদের ইমামদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

খুলনার ৩ থানায় এক সপ্তাহের কঠোর বিধি-নিষেধ

আপডেট : ০১:৩২:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ জুন ২০২১
::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::
খুলনার তিন থানা এলাকায় ১ সপ্তাহ কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বুধবার দুপুরে জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভায় সদর, সোনাডাঙা ও খালিশপুর থানা এলাকায় কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. কামাল হোসেন এবং খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন অনলাইনে যুক্ত ছিলেন।

সভায় বলা হয়, খুলনা লকডাউন করার কোনো প্রয়োজন নেই। তবে আগামী ৪ জুন থেকে খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা ও খালিশপুর থানা এলাকায় এক সপ্তাহ দোকানপাট বন্ধ রাখা হবে।

খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ইউসুফ আলী বলেন, আপাতত লকডাউনের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

খুলনা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মাদ বলেন, এক সপ্তাহের জন্য খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা এবং খালিশপুর থানা এলাকার কাঁচাবাজার ও ওষুধের দোকান ছাড়া অন্যসব দোকানপাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রয়োজনে পরবর্তীতে আরও কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সভায় সিটি মেয়র বলেন, সার্বিকভাবে করোনা নিয়ন্ত্রণে খুলনার স্বাস্থ্যবিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। সন্ধ্যার পর একাধিক লোকের জনসমাগম বন্ধ করতে হবে। তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং সর্বক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার করার নির্দেশনা দেন। এক্ষেত্রে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে মসজিদের ইমামদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।