ঢাকা ০৭:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মিরসরাইয়ে আগুনে পুড়ে অঙ্গার শিশু

মিরসরাইয়ে একটি বসতঘরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে লামিয়া আক্তার নামে এক বছর বয়সের এক শিশু মারা গেছে। আগুনে পুড়ে গেছে নতুন ঘর তৈরির জন্য রাখা ৬ লাখ টাকা।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপুর দেড়টায় উপজেলার ৬ নং ইছাখালী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের জমাদার গ্রামের গোলবক্স মুহুরী বাড়ির আজিজুল হকের ঘরে এই ঘটনা ঘটে। পরে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ষ্টেশনের কর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। নিহত লামিয়া ওই বাড়ির বাসিন্দা প্রবাসী রাজিব আহম্মদের মেয়ে।

আজিজুল হকের আত্মীয় হুমায়ুন কবির বলেন, ‘ঘরে যখন আগুন লাগে তখন আমার মামা আজিজুল হক মসজিদে ছিলেন। ঘরের নারী সদস্যরা বাইরে কাজ করছিলেন। শিশু লামিয়ার মা সন্তানকে ঘরে শুইয়ে রেখে পুকুরে গোসল করতে যান। আগুন লাগার পর ঘর থেকে লামিয়াকে বের করা সম্ভব হয়নি। পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায় শিশুটি।

তিনি আরও বলেন, নতুন ঘর নির্মাণের জন্য ঘরে গচ্ছিত রাখা ৬ লাখ টাকা, স্বর্ণালংকার, আসবাবপত্র, মূল্যবান কাগজপত্র কিছুই রক্ষা করা যায়নি। এতে প্রায় ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মীর হোসেন জানান, গোল বক্স মুহুরী বাড়িতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়ে আজিজুল হকের পুরো ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। শুধু তাই নয় তার ১ বছর বয়সী নাতনী দগ্ধ হয়ে মারা যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

ইছাখালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুন লাগতে পারে হলে সবার ধারণা। আগুন লাগার সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় শিশুটি ঘরের মধ্যে থাকায় সে পুড়ে মারা যায়। আগুন লাগার কিছুক্ষণ পর ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে একটি ঘর ও একটি রান্না ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের লিড়ার হায়াতুন্নবী বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে আগুনে ৪ কক্ষ বিশিষ্ট বসতঘর পুড়ে যায়। দুপুর দেড়টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। আগুনে ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা ১ বছর বয়সী শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সম্ভবত মা শিশুটিকে ঘুমে রেখে গোসল করতে গিয়েছিল। খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হই। অন্যথায় আরো বেশি ক্ষতি হতো। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্তাধিন।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

জনপ্রিয় সংবাদ

মিরসরাইয়ে আগুনে পুড়ে অঙ্গার শিশু

আপডেট সময় : ০৪:২৩:১৪ অপরাহ্ন, সোমাবার, ৮ অগাস্ট ২০২২

মিরসরাইয়ে একটি বসতঘরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে লামিয়া আক্তার নামে এক বছর বয়সের এক শিশু মারা গেছে। আগুনে পুড়ে গেছে নতুন ঘর তৈরির জন্য রাখা ৬ লাখ টাকা।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপুর দেড়টায় উপজেলার ৬ নং ইছাখালী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের জমাদার গ্রামের গোলবক্স মুহুরী বাড়ির আজিজুল হকের ঘরে এই ঘটনা ঘটে। পরে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ষ্টেশনের কর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। নিহত লামিয়া ওই বাড়ির বাসিন্দা প্রবাসী রাজিব আহম্মদের মেয়ে।

আজিজুল হকের আত্মীয় হুমায়ুন কবির বলেন, ‘ঘরে যখন আগুন লাগে তখন আমার মামা আজিজুল হক মসজিদে ছিলেন। ঘরের নারী সদস্যরা বাইরে কাজ করছিলেন। শিশু লামিয়ার মা সন্তানকে ঘরে শুইয়ে রেখে পুকুরে গোসল করতে যান। আগুন লাগার পর ঘর থেকে লামিয়াকে বের করা সম্ভব হয়নি। পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায় শিশুটি।

তিনি আরও বলেন, নতুন ঘর নির্মাণের জন্য ঘরে গচ্ছিত রাখা ৬ লাখ টাকা, স্বর্ণালংকার, আসবাবপত্র, মূল্যবান কাগজপত্র কিছুই রক্ষা করা যায়নি। এতে প্রায় ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মীর হোসেন জানান, গোল বক্স মুহুরী বাড়িতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়ে আজিজুল হকের পুরো ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। শুধু তাই নয় তার ১ বছর বয়সী নাতনী দগ্ধ হয়ে মারা যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

ইছাখালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুন লাগতে পারে হলে সবার ধারণা। আগুন লাগার সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় শিশুটি ঘরের মধ্যে থাকায় সে পুড়ে মারা যায়। আগুন লাগার কিছুক্ষণ পর ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে একটি ঘর ও একটি রান্না ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের লিড়ার হায়াতুন্নবী বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে আগুনে ৪ কক্ষ বিশিষ্ট বসতঘর পুড়ে যায়। দুপুর দেড়টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। আগুনে ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা ১ বছর বয়সী শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সম্ভবত মা শিশুটিকে ঘুমে রেখে গোসল করতে গিয়েছিল। খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হই। অন্যথায় আরো বেশি ক্ষতি হতো। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্তাধিন।