ঢাকা ০১:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দেবরকে বিয়ের দাবিতে বাড়ির সামনে অবস্থান

রংপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট : ০৫:৩৯:৫৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৩
  • / 20
রংপুরে দেবরকে বিয়ের দাবিতে তার বাড়ির সামনে অবস্থান নিয়েছেন এক নারী। গত সাত দিন ধরে নয় বছরের এক সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে সেখানেই খোলা আকাশের নিচে থাকছেন তিনি।

গতকাল (বুধবার) বিকেলে সরেজমিনে দেখা যায়, রংপুরের বদরগঞ্জ পৌর শহরে মণ্ডলপাড়ায় দেবর নিতুনের বাড়ির প্রধান ফটকের সামনে একটি বিছানা পেতে সন্তানকে নিয়ে বসে আছেন ওই নারী। গত বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) থেকে তিনি সেখানে অবস্থান করছেন। ওই নারীর বাবার বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায়।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১৫ বছর আগে মণ্ডলপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে মোস্তাফিজারের সঙ্গে বিয়ে হয় ওই নারীর। এক ছেলে সন্তানকে নিয়ে তাদের সংসার ভালোই চলছিল। এরই মধ্যে ওই নারীকে কু-প্রস্তাব দিতে শুরু করেন তার দেবর মোস্তাফিজারের ছোট ভাই নিতুন মিয়া। বিভিন্ন সময়ে তার মোবাইলে আপত্তিকর খুদে বার্তা পাঠান নিতুন। বিষয়টি জানতে পেরে নারীর সঙ্গে তার স্বামীর দূরত্ব তৈরি হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়।

ওই নারী বলেন, নিতুনের কারণে আমার সুখের সংসার ভেঙেছে। আমি ওকেই বিয়ে করতে চাই। বিয়ে না করা পর্যন্ত এখান থেকে যাবো না।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নিতুন মিয়া বলেন, ভাবি আমার চেয়ে ১০ বছরের বড়। দুই বছর আগে তার বিচ্ছেদ হয়েছে। এতদিন পরে তিনি কারও ইন্ধনে আমার বাড়িতে এসেছেন।

এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

দেবরকে বিয়ের দাবিতে বাড়ির সামনে অবস্থান

আপডেট : ০৫:৩৯:৫৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৩
রংপুরে দেবরকে বিয়ের দাবিতে তার বাড়ির সামনে অবস্থান নিয়েছেন এক নারী। গত সাত দিন ধরে নয় বছরের এক সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে সেখানেই খোলা আকাশের নিচে থাকছেন তিনি।

গতকাল (বুধবার) বিকেলে সরেজমিনে দেখা যায়, রংপুরের বদরগঞ্জ পৌর শহরে মণ্ডলপাড়ায় দেবর নিতুনের বাড়ির প্রধান ফটকের সামনে একটি বিছানা পেতে সন্তানকে নিয়ে বসে আছেন ওই নারী। গত বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) থেকে তিনি সেখানে অবস্থান করছেন। ওই নারীর বাবার বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায়।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১৫ বছর আগে মণ্ডলপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে মোস্তাফিজারের সঙ্গে বিয়ে হয় ওই নারীর। এক ছেলে সন্তানকে নিয়ে তাদের সংসার ভালোই চলছিল। এরই মধ্যে ওই নারীকে কু-প্রস্তাব দিতে শুরু করেন তার দেবর মোস্তাফিজারের ছোট ভাই নিতুন মিয়া। বিভিন্ন সময়ে তার মোবাইলে আপত্তিকর খুদে বার্তা পাঠান নিতুন। বিষয়টি জানতে পেরে নারীর সঙ্গে তার স্বামীর দূরত্ব তৈরি হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়।

ওই নারী বলেন, নিতুনের কারণে আমার সুখের সংসার ভেঙেছে। আমি ওকেই বিয়ে করতে চাই। বিয়ে না করা পর্যন্ত এখান থেকে যাবো না।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নিতুন মিয়া বলেন, ভাবি আমার চেয়ে ১০ বছরের বড়। দুই বছর আগে তার বিচ্ছেদ হয়েছে। এতদিন পরে তিনি কারও ইন্ধনে আমার বাড়িতে এসেছেন।

এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।