ঢাকা ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিনদিনেও খোঁজ মেলেনি ড্রেনে পড়া সেই ব্যবসায়ীর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১২:৫২:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২১
  • / 137
তিনদিন পেরিয়ে গেলেও চট্টগ্রাম নগরের মুরাদপুর এলাকায় জলাবদ্ধতার তীব্র স্রোতে পা পিছলে ড্রেনে পড়ে যাওয়া সবজি ব্যবসায়ী মো. সালেহ আহম্মেদের (৫৫) সন্ধান এখনও মেলেনি।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে ৪র্থ দিনের মতো উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গত বুধবার থেকে বিরতি দিয়ে পালা করে তল্লাশি অভিযান অব্যহত রেখেছে ডুবুরি দল।

আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ হাসানুল আলম বলেন, আজ সকাল ৮টা থেকে তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। আজকে নালা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্পটে অভিযান চালানো হচ্ছে। সাধারণত ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলে পানিতে ডুবে যাওয়া লাশ এমনিতেই ভেসে ওঠে। কিন্তু এখন পর্যন্ত নিখোঁজ ব্যক্তিকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এর কারণ হতে পারে পানির স্রোতে অনেক দূরে ভেসে গেছেন অথবা নালায় ময়লার ভেতরে কোথাও দেহটি আটকে আছে। আমরা ঘটনার প্রথমেই যে স্পটগুলো নির্ধারণ করেছিলাম গতকাল পর্যন্ত সেখানে কিছু পাইনি।

তিনি আরও বলেন, আজকে আমরা নালাটির শেষ প্রান্ত পর্যন্ত অভিযান চালাব। কর্ণফুলী নদীর যেখান থেকে নালাটি শুরু হয়েছে সেখানেও আমাদের অভিযান চলবে। আর কর্ণফুলী নদীতেও খোঁজ নেয়া হচ্ছে। তবে সেখান থেকেও এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কোন তথ্য আসেনি। নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের তল্লাশি অভিযান চলবে।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নিখোঁজ সালেহ আহম্মেদের পরিবারের সাথে নগরীর আছাদগঞ্জের কলাবাগানের বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে সাক্ষাৎ করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। এসময় মেয়র এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ ও সমবেদনা জানান। একইসঙ্গে পরিবারটির পাশে থাকার এবং ভরণ-পোষণ ও যোগ্য সদস্যের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে আন্তরিকভাবে উদ্যোগী হবেন বলে আশ্বাস দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

তিনদিনেও খোঁজ মেলেনি ড্রেনে পড়া সেই ব্যবসায়ীর

আপডেট : ১২:৫২:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২১
তিনদিন পেরিয়ে গেলেও চট্টগ্রাম নগরের মুরাদপুর এলাকায় জলাবদ্ধতার তীব্র স্রোতে পা পিছলে ড্রেনে পড়ে যাওয়া সবজি ব্যবসায়ী মো. সালেহ আহম্মেদের (৫৫) সন্ধান এখনও মেলেনি।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে ৪র্থ দিনের মতো উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গত বুধবার থেকে বিরতি দিয়ে পালা করে তল্লাশি অভিযান অব্যহত রেখেছে ডুবুরি দল।

আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ হাসানুল আলম বলেন, আজ সকাল ৮টা থেকে তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। আজকে নালা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্পটে অভিযান চালানো হচ্ছে। সাধারণত ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলে পানিতে ডুবে যাওয়া লাশ এমনিতেই ভেসে ওঠে। কিন্তু এখন পর্যন্ত নিখোঁজ ব্যক্তিকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এর কারণ হতে পারে পানির স্রোতে অনেক দূরে ভেসে গেছেন অথবা নালায় ময়লার ভেতরে কোথাও দেহটি আটকে আছে। আমরা ঘটনার প্রথমেই যে স্পটগুলো নির্ধারণ করেছিলাম গতকাল পর্যন্ত সেখানে কিছু পাইনি।

তিনি আরও বলেন, আজকে আমরা নালাটির শেষ প্রান্ত পর্যন্ত অভিযান চালাব। কর্ণফুলী নদীর যেখান থেকে নালাটি শুরু হয়েছে সেখানেও আমাদের অভিযান চলবে। আর কর্ণফুলী নদীতেও খোঁজ নেয়া হচ্ছে। তবে সেখান থেকেও এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কোন তথ্য আসেনি। নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের তল্লাশি অভিযান চলবে।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নিখোঁজ সালেহ আহম্মেদের পরিবারের সাথে নগরীর আছাদগঞ্জের কলাবাগানের বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে সাক্ষাৎ করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। এসময় মেয়র এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ ও সমবেদনা জানান। একইসঙ্গে পরিবারটির পাশে থাকার এবং ভরণ-পোষণ ও যোগ্য সদস্যের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে আন্তরিকভাবে উদ্যোগী হবেন বলে আশ্বাস দেন।