প্রেমের ফাঁদে ফেলে পোষাককর্মীকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ

জামালপুর প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২:২৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে
ছবি সংগৃহীত

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক পোশাককর্মীকে কতিথ প্রেমিকসহ তার বন্ধুরা পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার উপজেলার ডাংধরা ইউনিয়নের বাঘারচর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষণে সহযোগীতা করার অভিযোগে জাহিদুল ইসলাম (৩০) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। বিকালে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন। জাহিদুল বাঘার চরের টেংরামারী গ্রামের সাবু ব্যাপারীর ছেলে।

এর আগে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী ডাংধরা ইউনিয়নের বাঘারচর এলাকায় ওই পোষাককর্মীকে প্রেমিক সোহেবসহ তার বন্ধুরা পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাগুরা সদর উপজেলার খানাবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা এক পোশাককর্মীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে দেওয়ানগঞ্জের বাঘারচরের সোহেব আলীর (৩২) সাথে। কতিথ প্রেমিক সোহেব ফুসলিয়ে ওই পোষাককর্মীকে তার নিজ বাড়ি বাঘারচরে বেড়াতে নিয়ে যান। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে বেড়ানোর কথা বলে সন্ধারাতে বের হয়। বাড়ির কাছেই অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে সোহেবসহ তার বন্ধুরা পালাক্রমে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়।

এ ঘটনায় ওই পোশাককর্মী বাদী হয়ে কতিথ প্রেমিক সোহেব আলীকে প্রধান আসামি করে ৬ জন নামীয়সহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানায় ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভুক্তভোগী পোষাককর্মীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ মহব্বত কবীর বলেন, প্রেমের সম্পর্কের ফাঁদে ফেলে কতিথ প্রেমিক সোহেব আলী এক নারী পোষাককর্মীকে বাড়িতে বেড়াতে এনে বন্ধুদের নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে বলে মামলার এজাহারে অভিযোগ করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে জাহিদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে ১৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে জামালপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...