প্রেমিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা, ভারতে পালাতে গিয়ে প্রেমিক ধরা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১:৪২ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে
ছবি সংগৃহীত

সাতক্ষীরায় দশম শ্রেণির ছাত্রী পূর্ণিমা দাসকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ ও শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার একমাত্র আসামি ভিকটিমের প্রেমিক পার্থ মন্ডলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাতে অবৈধভাবে ভারতে পালানোর সময় বৈকারী সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহৃত ইলেকট্রিক ক্যাবল ও একটি বাইসাইকেল জব্দ করা হয়।

রোববার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস বিফিংয়ে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান এসব কথা জানান।

পূর্ণিমা দাস দেবহাটা উপজেলার টিকেট গ্রামের শান্তিরঞ্জন দাসের মেয়ে ও গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। প্রেমিক পার্থ মন্ডল একই গ্রামের শিবপদ মন্ডলের ছেলে।

পুলিশ সুপার বলেন, পূর্ণিমা দাসকে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ শেষে গলায় ক্যাবল পেঁচিয়ে হত্যার অভিযোগ ওঠে প্রেমিক পার্থ মন্ডলের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে বাড়ির পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়ির সবজি বাগান থেকে পূর্ণিমার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন রাতে পূর্ণিমার বাবা শান্তি রঞ্জন দাস উপজেলার দেবহাটা থানায় পার্থকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন।

পরে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে শনিবার রাতে পার্থ মন্ডলকে সদর উপজেলার বৈকারী সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার করে।

পূর্ণিমা দাসের সঙ্গে পার্থ মন্ডলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এক বছর আগে পূর্ণিমাকে বিয়ের জন্য পার্থ মন্ডল প্রস্তাব দেন। এতে পূর্ণিমার বাবা শান্তি রঞ্জন দাস রাজি না হওয়ায় পূর্ণিমা তাকে এড়িয়ে চলতো। এতে পার্থ ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পনা সুযোগ বুঝে তাকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করে বলে জানান পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।

এদিকে স্কুলছাত্রী পূর্ণিমা হত্যার ঘটনায় খুনি পার্থ মন্ডলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে দেবহাটা উপজেলার গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শত শত এলাকাবাসী। রোববার বেলা ১১টার সময় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...