ঢাকা ০৭:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হারতে থাকার খবর গানিকে চেপে যেতে বলেছিলেন বাইডেন!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১২:৫৪:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • / 124
তালেবানের দেওয়া সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই আফগানিস্তান ছেড়ে চলে গেছে মার্কিন বাহিনী। আফগানিস্তানের পরিস্থিতি জটিল হওয়ার জন্য একদিকে যখন জো বাইডেন প্রশাসনকে দায়ী করছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, অন্যদিকে তখন পূর্বসূরির উপরেই দায় চাপাচ্ছেন বাইডেন। এ পরিস্থিতিতে বাইডেনের সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানির শেষ ফোনালাপ সামনে এসেছে। তাতে ধরা পড়েছে চাঞ্চল্যকর কথোপকথন। খবর আনন্দবাজার অনলাইনের।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ ফোনালাপ সামনে এনেছে। তাদের দাবি, গত ২৩ জুলাই শেষ বার গানিকে ফোন করেছিলেন বাইডেন। তাদের মধ্যে ১৪ মিনিট কথা হয়েছিল। সেখানে গানিকে কিছু পরামর্শ দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। রয়টার্সের দাবি, গানিকে বাইডেন বলেছিলেন, যদি যুদ্ধে আফগান সেনা তালেবানের কাছে হারতে থাকে, তা হলেও শেষ পর্যন্ত দেশের মানুষকে সেটা বলা যাবে না। তাদের বোঝাতে হবে যে আফগান সেনা জিতছে। সেই সঙ্গে আরও বোঝাতে হবে যে, যুক্তরাষ্ট্র তাদের সাহায্যের জন্য রয়েছে। শেষ দিন পর্যন্ত এ ধারণা জিইয়ে রাখতে হবে। প্রয়োজনে গানি ও তার সরকারের মন্ত্রীদের সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলতে হবে বলেই জানান বাইডেন।

এ ফোনালাপে বাইডেনের কাছে গানি বেশ কিছু সাহায্য চেয়েছিলেন বলেও জানা গেছে। তালেবানকে ঠেকাতে মার্কিন বিমানবাহিনীকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান তিনি। সেই সঙ্গে আফগান সেনার জন্য আর্থিক সাহায্যও চান গানি। বাইডেন তখন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সব রকমের সাহায্য করবে যুক্তরাষ্ট্র। প্রয়োজন পড়লে আফগানদের দেশ থেকে বার করে আনা হবে বলেও জানান তিনি। সেই সঙ্গে আফগান বাহিনীর প্রশংসা করেছিলেন বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের অধীনে প্রশিক্ষণ নেওয়া তিন লাখ সেনা তালেবানকে রুখে দেবে বলেই জানান তিনি।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সেনা আফগানিস্তান ছাড়তে শুরু করার পরই একের পর এক প্রদেশ দখল করতে শুরু করে তালেবান। গত ১৫ আগস্ট তারা কাবুল দখল করার পর দেশ ছেড়ে পালান গানি। এ মুহূর্তে তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতে রয়েছেন। অন্য দিকে আফগানিস্তানের পতনের পর বাইডেন জানান, তিনি ভাবতে পারেননি এত সহজে হেরে যাবে আফগান সেনা। তাদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আর লড়াই করবে না বলেও জানিয়ে দেন তিনি। তালেবানের দেওয়া সময়সীমার মধ্যে সবাইকে আফগানিস্তান থেকে বার করে আনে তারা। যদিও এ ফোনালাপ সামনে আসার পর ফের নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

হারতে থাকার খবর গানিকে চেপে যেতে বলেছিলেন বাইডেন!

আপডেট : ১২:৫৪:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
তালেবানের দেওয়া সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই আফগানিস্তান ছেড়ে চলে গেছে মার্কিন বাহিনী। আফগানিস্তানের পরিস্থিতি জটিল হওয়ার জন্য একদিকে যখন জো বাইডেন প্রশাসনকে দায়ী করছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, অন্যদিকে তখন পূর্বসূরির উপরেই দায় চাপাচ্ছেন বাইডেন। এ পরিস্থিতিতে বাইডেনের সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানির শেষ ফোনালাপ সামনে এসেছে। তাতে ধরা পড়েছে চাঞ্চল্যকর কথোপকথন। খবর আনন্দবাজার অনলাইনের।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ ফোনালাপ সামনে এনেছে। তাদের দাবি, গত ২৩ জুলাই শেষ বার গানিকে ফোন করেছিলেন বাইডেন। তাদের মধ্যে ১৪ মিনিট কথা হয়েছিল। সেখানে গানিকে কিছু পরামর্শ দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। রয়টার্সের দাবি, গানিকে বাইডেন বলেছিলেন, যদি যুদ্ধে আফগান সেনা তালেবানের কাছে হারতে থাকে, তা হলেও শেষ পর্যন্ত দেশের মানুষকে সেটা বলা যাবে না। তাদের বোঝাতে হবে যে আফগান সেনা জিতছে। সেই সঙ্গে আরও বোঝাতে হবে যে, যুক্তরাষ্ট্র তাদের সাহায্যের জন্য রয়েছে। শেষ দিন পর্যন্ত এ ধারণা জিইয়ে রাখতে হবে। প্রয়োজনে গানি ও তার সরকারের মন্ত্রীদের সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলতে হবে বলেই জানান বাইডেন।

এ ফোনালাপে বাইডেনের কাছে গানি বেশ কিছু সাহায্য চেয়েছিলেন বলেও জানা গেছে। তালেবানকে ঠেকাতে মার্কিন বিমানবাহিনীকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান তিনি। সেই সঙ্গে আফগান সেনার জন্য আর্থিক সাহায্যও চান গানি। বাইডেন তখন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সব রকমের সাহায্য করবে যুক্তরাষ্ট্র। প্রয়োজন পড়লে আফগানদের দেশ থেকে বার করে আনা হবে বলেও জানান তিনি। সেই সঙ্গে আফগান বাহিনীর প্রশংসা করেছিলেন বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের অধীনে প্রশিক্ষণ নেওয়া তিন লাখ সেনা তালেবানকে রুখে দেবে বলেই জানান তিনি।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সেনা আফগানিস্তান ছাড়তে শুরু করার পরই একের পর এক প্রদেশ দখল করতে শুরু করে তালেবান। গত ১৫ আগস্ট তারা কাবুল দখল করার পর দেশ ছেড়ে পালান গানি। এ মুহূর্তে তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতে রয়েছেন। অন্য দিকে আফগানিস্তানের পতনের পর বাইডেন জানান, তিনি ভাবতে পারেননি এত সহজে হেরে যাবে আফগান সেনা। তাদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আর লড়াই করবে না বলেও জানিয়ে দেন তিনি। তালেবানের দেওয়া সময়সীমার মধ্যে সবাইকে আফগানিস্তান থেকে বার করে আনে তারা। যদিও এ ফোনালাপ সামনে আসার পর ফের নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।