ঢাকা ০২:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সাংবাদিক বশিরকে হুমকির ঘটনায় ডিআরইউ ও র‌্যাক’র নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : ০৭:১৮:২৯ অপরাহ্ন, সোমাবার, ১ অগাস্ট ২০২২
  • / 326

দৈনিক জনবাণী পত্রিকার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বশির হোসেন খানকে মুঠোফোনে হুমকি এবং গালাগালি করার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে মাঠ পর্যায়ের সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) এবং দুর্নীতি দমন কমিশন বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন রিপোর্টার্স এগেইনস্ট করাপশন (র‌্যাক)।

সোমবার পৃথক বিবৃতিতে উভয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। ডিআরইউ’র দপ্তর সম্পাদক রফিক রাফি প্রেরিত বিবৃতিতে কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষে সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আহ্বান জানান।

এদিকে, অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবেদন করায় র‌্যাক’র সদস্য বশির হোসেন খানকে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে র‌্যাকের নেতৃৃবৃন্দ। র‌্যাক সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক তাওহীদ সৌরভসহ নেতৃবৃন্দ এ ঘটনায় এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের গ্রহণের আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, হুমকির ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগ থানায় জিডি করেছেন সাংবাদিক বশির হোসেন খান। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, “দৈনিক জনবাণী পত্রিকার ৩১/০৭/২২ ইং তারিখের সংখ্যায় ‘অর্থ আত্মসাত প্রমাণের পরেও তিনি পুরস্কৃত’ শিরোনামে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কেরানীগঞ্জ (দক্ষিণ) থানা শাখার ব্যবস্থাপক জিন্নাত জাহান তুলি’র বিরুদ্ধে তার বিভিন্ন দুর্নীতির বিষয়ক তথ্যনির্ভর সংবাদ পরিবেশন করি।

আমার মোবাইল নম্বরে (০১৮১৩-২৬৬৪৫২) অদ্য দুপুর ১টা ০৬ মিনিটে ০১৯৭৯-৩৪৬২৮৮ মোবাইল নম্বর থেকে কল আসে। কলটি রিসিভ করার সঙ্গে সঙ্গে অপর প্রান্ত থেকে পুরুষ কণ্ঠের ব্যক্তি আমাকে বলেন, ‘তোর নাম কি? তুই এই পত্রিকায় কত বছর ধরে কাজ কর? কি উল্টা পাল্টা নিউজ কর?’ জবাবে আমি বলি, ‘আমার কাছে অভিযোগের তথ্য প্রমাণ ও কাগজ আছে।

সেই কাগজের ভিত্তিতে নিউজ করেছি।’ ওই ব্যক্তি উত্তেজিত হয়ে আমাকে বলেন, ‘আমি কিন্তু ভাল শ্যুটার। আমার শ্যুট মিস হয় না। তোর এই নিউজ-ফিউজ বন্ধ কর। না হলে পরিণতি খারাপ হবে’। এসময় ওই ব্যক্তি আমাকে ভয়ভীতি দেখায় এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে, যা লেখার অযোগ্য।’’

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সাংবাদিক বশিরকে হুমকির ঘটনায় ডিআরইউ ও র‌্যাক’র নিন্দা

আপডেট : ০৭:১৮:২৯ অপরাহ্ন, সোমাবার, ১ অগাস্ট ২০২২

দৈনিক জনবাণী পত্রিকার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বশির হোসেন খানকে মুঠোফোনে হুমকি এবং গালাগালি করার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে মাঠ পর্যায়ের সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) এবং দুর্নীতি দমন কমিশন বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন রিপোর্টার্স এগেইনস্ট করাপশন (র‌্যাক)।

সোমবার পৃথক বিবৃতিতে উভয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। ডিআরইউ’র দপ্তর সম্পাদক রফিক রাফি প্রেরিত বিবৃতিতে কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষে সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আহ্বান জানান।

এদিকে, অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবেদন করায় র‌্যাক’র সদস্য বশির হোসেন খানকে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে র‌্যাকের নেতৃৃবৃন্দ। র‌্যাক সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক তাওহীদ সৌরভসহ নেতৃবৃন্দ এ ঘটনায় এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের গ্রহণের আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, হুমকির ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগ থানায় জিডি করেছেন সাংবাদিক বশির হোসেন খান। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, “দৈনিক জনবাণী পত্রিকার ৩১/০৭/২২ ইং তারিখের সংখ্যায় ‘অর্থ আত্মসাত প্রমাণের পরেও তিনি পুরস্কৃত’ শিরোনামে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কেরানীগঞ্জ (দক্ষিণ) থানা শাখার ব্যবস্থাপক জিন্নাত জাহান তুলি’র বিরুদ্ধে তার বিভিন্ন দুর্নীতির বিষয়ক তথ্যনির্ভর সংবাদ পরিবেশন করি।

আমার মোবাইল নম্বরে (০১৮১৩-২৬৬৪৫২) অদ্য দুপুর ১টা ০৬ মিনিটে ০১৯৭৯-৩৪৬২৮৮ মোবাইল নম্বর থেকে কল আসে। কলটি রিসিভ করার সঙ্গে সঙ্গে অপর প্রান্ত থেকে পুরুষ কণ্ঠের ব্যক্তি আমাকে বলেন, ‘তোর নাম কি? তুই এই পত্রিকায় কত বছর ধরে কাজ কর? কি উল্টা পাল্টা নিউজ কর?’ জবাবে আমি বলি, ‘আমার কাছে অভিযোগের তথ্য প্রমাণ ও কাগজ আছে।

সেই কাগজের ভিত্তিতে নিউজ করেছি।’ ওই ব্যক্তি উত্তেজিত হয়ে আমাকে বলেন, ‘আমি কিন্তু ভাল শ্যুটার। আমার শ্যুট মিস হয় না। তোর এই নিউজ-ফিউজ বন্ধ কর। না হলে পরিণতি খারাপ হবে’। এসময় ওই ব্যক্তি আমাকে ভয়ভীতি দেখায় এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে, যা লেখার অযোগ্য।’’