যুক্তরাষ্ট্রকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ

;
  • প্রকাশিত: ৭ মে ২০২১, ৭:১৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৬ মাস আগে
No Caption

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

বাংলাদেশি যেসব শিক্ষার্থী ভিসা জটিলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে ভর্তি ও বৃত্তির সুযোগ হারাচ্ছেন, তাদের ভিসার বিষয়টি সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলারের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এই অনুরোধ জানান। আর্ল মিলার ওই দিন সকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তার দপ্তরে দেখা করেন।

শুক্রবার (৭ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবছর প্রায় তিন হাজার শিক্ষার্থী বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে যান। কিন্তু দেশে করোনার সংক্রমণ নতুন করে বাড়তে শুরু করলে যুক্তরাষ্ট্রগামী এই শিক্ষার্থীরা সংকটের মধ্যে পড়েন। কারণ, লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর পর গত বুধবার মার্কিন দূতাবাস ১৬ মে পর্যন্ত সব ভিসার সাক্ষাৎকার বাতিল করেছে। ফলে অনেক শিক্ষার্থী অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। এই সংকট কাটিয়ে উঠতে ৩ মে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি স্মারকলিপি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রগামী শিক্ষার্থীরা।

বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের ভিসা জটিলতা এবং সাক্ষাৎকার প্রসঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানান, বাংলাদেশের চলমান লকডাউনের কারণে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। লকডাউনের মেয়াদ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রগামী শিক্ষার্থীদের ভিসা জটিলতা ও সাক্ষাৎকারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে। যাতে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গিয়ে নির্ধারিত শিক্ষাবর্ষে গিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মূলত বাংলাদেশে টিকার মজুদ কমে আসায় যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পেতে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলোচনা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২ কোটি ডোজ টিকা দেয়ারও অনুরোধ করেন ড. মোমেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ড. মোমেন জানান, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ৬০ মিলিয়ন ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সংরক্ষিত রয়েছে। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে জরুরিভাবে ৪০ লাখ ডোজ টিকা চেয়েছি। যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বলেছেন, তিনি এটা জোরালোভাবে দেখছেন।

বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থীদের আশ্রয়ে রোহিঙ্গাদের অগ্রাধিকার এবং ভাসানচরসহ রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি অনুরোধ জানান।

চলতি বছর জো বাইডেন প্রশাসন ৬২ হাজার ৫০০ আর আগামী বছর ১ লাখ ২৫ হাজার শরণার্থী আশ্রয় দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ অনুরোধ জানান।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...