ঢাকা ০৭:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘আপনজনের প্রতি অভিমান স্থায়ী হতে পারে না’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০১:৫৭:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ মে ২০২১
  • / 181

সংগৃহীত ছবি।

::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::

আপনজনের ওপর অভিমান কখনো স্থায়ী হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

শনিবার বিকালে ওবায়দুল কাদেরের সরকারি বাসভবনে গিয়ে সাক্ষাৎ করেন আবদুল কাদের মির্জা। পরে ফেসবুক স্টাটাসে এ মন্তব্য করেন কাদের মির্জা।

কাদের মির্জা বলেন, আমার পিতৃসমতুল্য সহোদর বড় ভাই। বাংলাদেশের মেধাবী রাজনীতির প্রতীক যিনি তৃণমূল থেকে নিজ মেধা ও শ্রমে এশিয়ার অন্যতম রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকে পদাস্থিত হয়েছেন। বাংলাদেশের মন্ত্রীপরিষদের অন্যতম সফল মন্ত্রী হয়েছেন।

আমরা সর্বদা রাজনীতি করেছি জনগনের জন্য জনকল্যাণের জন্য। মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বিশ্বাস করে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, ইনশাহ আল্লাহ, জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত জনগণের জন্য নিজেদের নিয়োজিত রাখবো।

মানুষের মান অভিমানের মধ্যে মানব জীবন রচিত হয়। আপনজনের প্রতি সাময়িক অভিমান হলেও তা কখনো স্থায়ী হতে পারে না। সকল গ্লানি ভুলে শান্তির কোম্পানীগঞ্জ প্রতিষ্ঠার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পতাকাতলে একত্রিত হতে আহ্বান জানাচ্ছি। জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

সম্প্রতি ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে ছোটভাই আবদুল কাদের মির্জার সম্পর্কের ব্যাপক অবনতি হয়। স্থানীয় পর্যায়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে কয়েক দফার সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনাও ঘটে। এছাড়া কাদের মির্জা বিভিন্ন সময় ফেসবুক লাইভে এসে বড়ভাইয়ের কড়া সমালোচনা করেন। বিব্রতকর এই অবস্থার মধ্যে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনকে বিষয়টি সুরাহার দায়িত্ব দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। এর অংশ হিসেবেই কাদের মির্জা বড়ভাইয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

‘আপনজনের প্রতি অভিমান স্থায়ী হতে পারে না’

আপডেট : ০১:৫৭:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ মে ২০২১
::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::

আপনজনের ওপর অভিমান কখনো স্থায়ী হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

শনিবার বিকালে ওবায়দুল কাদেরের সরকারি বাসভবনে গিয়ে সাক্ষাৎ করেন আবদুল কাদের মির্জা। পরে ফেসবুক স্টাটাসে এ মন্তব্য করেন কাদের মির্জা।

কাদের মির্জা বলেন, আমার পিতৃসমতুল্য সহোদর বড় ভাই। বাংলাদেশের মেধাবী রাজনীতির প্রতীক যিনি তৃণমূল থেকে নিজ মেধা ও শ্রমে এশিয়ার অন্যতম রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকে পদাস্থিত হয়েছেন। বাংলাদেশের মন্ত্রীপরিষদের অন্যতম সফল মন্ত্রী হয়েছেন।

আমরা সর্বদা রাজনীতি করেছি জনগনের জন্য জনকল্যাণের জন্য। মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বিশ্বাস করে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, ইনশাহ আল্লাহ, জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত জনগণের জন্য নিজেদের নিয়োজিত রাখবো।

মানুষের মান অভিমানের মধ্যে মানব জীবন রচিত হয়। আপনজনের প্রতি সাময়িক অভিমান হলেও তা কখনো স্থায়ী হতে পারে না। সকল গ্লানি ভুলে শান্তির কোম্পানীগঞ্জ প্রতিষ্ঠার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পতাকাতলে একত্রিত হতে আহ্বান জানাচ্ছি। জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

সম্প্রতি ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে ছোটভাই আবদুল কাদের মির্জার সম্পর্কের ব্যাপক অবনতি হয়। স্থানীয় পর্যায়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে কয়েক দফার সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনাও ঘটে। এছাড়া কাদের মির্জা বিভিন্ন সময় ফেসবুক লাইভে এসে বড়ভাইয়ের কড়া সমালোচনা করেন। বিব্রতকর এই অবস্থার মধ্যে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনকে বিষয়টি সুরাহার দায়িত্ব দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। এর অংশ হিসেবেই কাদের মির্জা বড়ভাইয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন।