ঢাকা ১২:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শাহবাগে প্রথম ফাইভ স্টার হোটেল!

মোস্তফা জামান ফরহাদ
  • আপডেট : ০৫:০৫:১১ অপরাহ্ন, সোমাবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৩
  • / 55

১৯৬৬ সালে ঢাকার শাহবাগে প্রায় সাড়ে ৪ একর জমির ওপর তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম ফাইভ স্টার হোটেল ইন্টারকন্টিন্যান্টাল চালু হয়।
হোটেলটি ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত ইন্টার কন্টিনেন্টাল গ্রুপের আওতায় থাকে এরপর পরিচালনার ভার শেরাটন গ্রুপ লাভ করে। ২০১১ সালে শেরাটন গ্রুপ দায়িত্ব ছেড়ে দিলে হোটেলটির নামকরণ করা হয় রূপসী বাংলা।

২০১৩ সালে পুনরায় ইন্টার কন্টিনেন্টাল গ্রুপ হোটেলটির পরিচালনা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এরপর বছর চারেক ধরে হোটেলটি সংস্কার করা হয় এবং ২০১৮ সালে ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেল হিসেবে নবসাজে পুনরায় আত্মপ্রকাশ করে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টাল নিরপেক্ষ এলাকা হিসাবে ভূমিকা পালন করে। হোটেলটিতে অবস্থান করে যুদ্ধের সংবাদ সংগ্রহ করেছিলেন একদল বিদেশি সাংবাদিক।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের কালরাতে ইতিহাসের বর্বরতম গণহত্যার ছবি ধারণ করেছিলেন হোটেলে অবস্থানরত বিবিসির বিখ্যাত সাংবাদিক মার্ক টালি ও সাইমন ড্রিং, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) পাকিস্তান ব্যুরোর প্রধান আর্নল্ড জেইটলিনসহ আরো অনেক সাংবাদিক।

নিচে হোটেলটির প্রথমদিকের একটি ছবি যা অস্ট্রেলিয়ার একটি বুলেটিনে প্রকাশ পায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

শাহবাগে প্রথম ফাইভ স্টার হোটেল!

আপডেট : ০৫:০৫:১১ অপরাহ্ন, সোমাবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৩

১৯৬৬ সালে ঢাকার শাহবাগে প্রায় সাড়ে ৪ একর জমির ওপর তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম ফাইভ স্টার হোটেল ইন্টারকন্টিন্যান্টাল চালু হয়।
হোটেলটি ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত ইন্টার কন্টিনেন্টাল গ্রুপের আওতায় থাকে এরপর পরিচালনার ভার শেরাটন গ্রুপ লাভ করে। ২০১১ সালে শেরাটন গ্রুপ দায়িত্ব ছেড়ে দিলে হোটেলটির নামকরণ করা হয় রূপসী বাংলা।

২০১৩ সালে পুনরায় ইন্টার কন্টিনেন্টাল গ্রুপ হোটেলটির পরিচালনা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এরপর বছর চারেক ধরে হোটেলটি সংস্কার করা হয় এবং ২০১৮ সালে ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেল হিসেবে নবসাজে পুনরায় আত্মপ্রকাশ করে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টাল নিরপেক্ষ এলাকা হিসাবে ভূমিকা পালন করে। হোটেলটিতে অবস্থান করে যুদ্ধের সংবাদ সংগ্রহ করেছিলেন একদল বিদেশি সাংবাদিক।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের কালরাতে ইতিহাসের বর্বরতম গণহত্যার ছবি ধারণ করেছিলেন হোটেলে অবস্থানরত বিবিসির বিখ্যাত সাংবাদিক মার্ক টালি ও সাইমন ড্রিং, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) পাকিস্তান ব্যুরোর প্রধান আর্নল্ড জেইটলিনসহ আরো অনেক সাংবাদিক।

নিচে হোটেলটির প্রথমদিকের একটি ছবি যা অস্ট্রেলিয়ার একটি বুলেটিনে প্রকাশ পায়।