ওবায়দুল কাদেরের প্রশ্নের জবাব দিলেন ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক;
  • প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২:০৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে
ছবি সংগৃহীত

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির নেতা কে হবেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ওবায়দুল কাদেরের কথার জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশে নেতা তো একজনই। তিনি হলেন বেগম খালেদা জিয়া। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে ‘করোনা হেল্প সেন্টারের উদ্বোধনী উপলক্ষে’ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

গত সোমবার বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রশ্ন করতে চাই এবং বলতে চাই। আগামী নির্বাচনে আপনাদের নেতা কে? আন্দোলনে আপনাদের নেতা কে? কাকে ঘিরে আন্দোলন করবেন? কাকে ঘিরে সরকার গঠন করবেন? আমরা বলে দিচ্ছি, আমাদের নেতা হচ্ছেন শেখ হাসিনা।

এই বক্তব্যের প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেব নেতার কথা বলেন? আরে নেতা তো বাংলাদেশে একজনই, তিনি বেগম খালেদা জিয়া। তিনি একমাত্র নেত্রী যিনি এই দেশে দীর্ঘ নয় বছর সংগ্রামের মধ্য দিয়ে স্বৈরাচারকে পরাজিত করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এখনো গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করতে গিয়ে তিনি গৃহবন্দি হয়ে আছেন। মিথ্যা মামলায় তাকে বেআইনিভাবে সাজা দেয়া হয়েছে।

পৃথিবীতে কোনো স্বৈরশাসক, একনায়ক, ফ্যাসিস্ট শাসক টিকে থাকতে পারেনি মন্তব্য করে তিনি বলেন, জনতার উত্তাল রোষের মধ্যে তাদেরকে পরাজয় বরণ করতে হয়েছে। তখন আর তাদেরকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এই ফ্যাসিস্ট আওয়ামী সরকারও টিকে থাকতে পারবে না। তাদেরকে খুঁজ পাওয়া যাবে না।

‘আমি সরকারকে বলবো এখনো সময় আছে, দেয়ালের লিখনিগুলো পড়ুন। মানুষের চোখের ভাষা বুঝতে চেষ্টা করুন, মানুষের মনের ভাষা বুঝতে চেষ্টা করুন। আপনাদের ব্যর্থতার জন্য পদত্যাগ করুন।’

সরকারকে উদ্দেশ্য করে ফখরুল বলেন, আপনারা জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। সেই অপরাধ থেকে যদি রক্ষা পেতে চান অবিলম্বে পদত্যাগ করুন এবং একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে জনগণ যেনো তার পছন্দের সরকার নির্বাচিত করতে পারে, সেই ব্যবস্থা করুন।

তিনি বলেন, আমাদের ইসহাক সরকারসহ সকল ছাত্র নেতা, যুব নেতার উপর নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে। থানায় নিয়ে গিয়ে তাদের পায়ে গুলি করে পঙ্গু করে দেয়া হয়েছে। আমরা ভুলে যাইনি সেসব কথা। এখনো ঘরে ঘরে গিয়ে পুলিশ হয়রানি করছে। কারণ কি? কারণ বিএনপি জেগে উঠেছে।

বিএনপির সাংগঠনিক প্রসঙ্গে মির্জা আলমগীর বলেন, নতুন করে বিএনপিকে সাজানো হচ্ছে, নতুন কমিটি করা হচ্ছে। এতে করে নতুন জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। নতুন প্রাণের সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য তাদের (সরকার) মধ্যে ভয় সৃষ্টি হয়েছে। তারা ভয় পেয়েছে, ভয়ে কাঁপছে। এজন্য তারা বিএনপির উপর আবার আক্রমণ শুরু করেছে।

সরকার করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা ডেঙ্গুকেও নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি। প্রকৃত পক্ষে জনগণের সমস্যা সমাধানে এই সরকারের কোনো আগ্রহ নাই। সরকার সব ক্ষেত্রে কি রকম তেলেসমাতি কাণ্ড ঘটিয়েছে তা আপনার নিজ চোখে দেখেছেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, একজন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আছেন, যার প্রতিটি কথা মিথ্যা। তারা করোনা মোকাবেলা করতে গিয়ে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছেন। শুধু করোনা নয়, গোটা স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ভেঙে ফেলেছে। এখন আপনারা কেউ খুব অসুস্থ হয়ে হঠাৎ ইমার্জেন্সিতে গেলে সেখানে কোনো চিকিৎসা পাবেন না।

এসময় বাংলাদেশে এখন স্বাস্থ্য বিভাগ সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...