ঢাকা ০৬:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

“করোনাকালীন সময়ে রিক্সা চলাচলের অনুমতি দেয়ায় জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ”

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:১৭:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুলাই ২০২১
  • ২৬ বার পড়া হয়েছে

::এনামুল হক::

জাতীয় রিক্সা ভ্যান শ্রমিক লীগ সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বশির আহমেদ, তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় ও শ্রমিক বান্ধব নেতা হিসেবে সকলের কাছে সু-পরিচিত।

তিনি (বশির) সবসময় রিক্সা ভ্যান শ্রমিকদের সুখে-দু:খে, তাদের পাশে থেকে বিভিন্ন ভাবে তাদের কে সাধ্যমত সহযোগীতা করে আসছেন বলে জানা যায়। এবং তিনি (বশির) রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকদের নিয়ে বিগত বহুবছর যাবত বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের সমস্ত মিটিং মিছিল ও আন্দোলনে অংশগ্রহন করে আসেছেন বলে জানা যায়।

এই প্রতিনিধীর সঙ্গে কথা হলে, তিনি (বশির) বলেন, “রিক্স-ভ্যান শ্রমিকেরা বঙ্গবন্ধুর ডাকে সারা দিয়ে বিগত ১৯৭১ সন থেকেই আওয়ামিলীগের সমস্ত কার্যক্রমে দায়িত্বশীল ভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে। এবং পরবর্তী সময়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে থেকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে সমস্ত আন্দোলন সংগ্রাম ও মিটিং মিছিলে ধারাবাহিক ভাবে অংশগ্রহণ করে আসছেন। তবে আমরা আরো বলতে চাই যে, বিগত বহুবছর (পায়ে চালিত) রিক্সা শ্রমিকেরা চালিয়ে আসছে, যা অত্যন্ত অমানবিক।

কিন্তু বিগত কয়েক বছর যাবত- জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অংশ হিসেবে (মানুষ ও শ্রমিক) দের মানবিক দিক বিবেচনা করে, আমরা কিছু কিছু রিক্সা ও ভ্যান (মটর বা ব্যাটারী) চালিত করতে আশা প্রকাশ করছি। কারন (মানুষ হয়ে মানুষকে বহন করা অনেক কষ্টের ও অমানবিক) এবং বিগত কয়েক বছর আগে মমতাময়ী মা জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপের আশা নিয়ে, আমরা জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিক লীগের পক্ষ থেকে- উচ্চ আদালতে ব্যাটারী/মটর চালিত রিক্সা-ভ্যান চলাচলের আদেশ বা অনুমতি চেয়ে (মানবিক দিক বিবেচনা করে) একটি আবেদন করা হয়।

যা বর্তমানে উচ্চ আদালতে চলমান বা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এবং আমরা আরো বলতে চাই যে, বিগত বছরগুলিতে এবং এখন পর্যন্ত যত রিক্সা-ভ্যানের জন্য বিদেশ থেকে যন্ত্রাংশ/পার্টস আমদানী করা হচ্ছে, প্রত্যকটিরই সরকার রাজস্ব পাচ্ছে। এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা সবসময়-ই শ্রমিক বান্ধব ও মমতাময়ী নেত্রী। আমরা এই ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও ভ্যানগুলো মহাসড়ক বাদে শাখা রাস্তায় ও সরকারী বিধিনিষেধ মেনে চলাচলের জন্য, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সদয় হস্তেক্ষপ কামনা করছি।

বাৎসরিক ভাবে সরকারকে রজস্ব দিয়ে হলেও আমরা এই পদেক্ষপটি- দ্রুত সমাধান হবে বলে আশা করছি। এবং করোনাকালীন লকডাউন সময়েও গরীব দুঃখী- মেহনতী মানুষের জন্য রিক্সা চালকদের রাস্তায় চলাচলের অনুমতি প্রদান করায়, শ্রমিক বান্ধব নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকলীগের পক্ষ থেকে, আন্তরিক ভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি”।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

“করোনাকালীন সময়ে রিক্সা চলাচলের অনুমতি দেয়ায় জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ”

আপডেট সময় : ০২:১৭:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুলাই ২০২১

::এনামুল হক::

জাতীয় রিক্সা ভ্যান শ্রমিক লীগ সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বশির আহমেদ, তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় ও শ্রমিক বান্ধব নেতা হিসেবে সকলের কাছে সু-পরিচিত।

তিনি (বশির) সবসময় রিক্সা ভ্যান শ্রমিকদের সুখে-দু:খে, তাদের পাশে থেকে বিভিন্ন ভাবে তাদের কে সাধ্যমত সহযোগীতা করে আসছেন বলে জানা যায়। এবং তিনি (বশির) রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকদের নিয়ে বিগত বহুবছর যাবত বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের সমস্ত মিটিং মিছিল ও আন্দোলনে অংশগ্রহন করে আসেছেন বলে জানা যায়।

এই প্রতিনিধীর সঙ্গে কথা হলে, তিনি (বশির) বলেন, “রিক্স-ভ্যান শ্রমিকেরা বঙ্গবন্ধুর ডাকে সারা দিয়ে বিগত ১৯৭১ সন থেকেই আওয়ামিলীগের সমস্ত কার্যক্রমে দায়িত্বশীল ভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে। এবং পরবর্তী সময়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে থেকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে সমস্ত আন্দোলন সংগ্রাম ও মিটিং মিছিলে ধারাবাহিক ভাবে অংশগ্রহণ করে আসছেন। তবে আমরা আরো বলতে চাই যে, বিগত বহুবছর (পায়ে চালিত) রিক্সা শ্রমিকেরা চালিয়ে আসছে, যা অত্যন্ত অমানবিক।

কিন্তু বিগত কয়েক বছর যাবত- জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অংশ হিসেবে (মানুষ ও শ্রমিক) দের মানবিক দিক বিবেচনা করে, আমরা কিছু কিছু রিক্সা ও ভ্যান (মটর বা ব্যাটারী) চালিত করতে আশা প্রকাশ করছি। কারন (মানুষ হয়ে মানুষকে বহন করা অনেক কষ্টের ও অমানবিক) এবং বিগত কয়েক বছর আগে মমতাময়ী মা জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপের আশা নিয়ে, আমরা জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিক লীগের পক্ষ থেকে- উচ্চ আদালতে ব্যাটারী/মটর চালিত রিক্সা-ভ্যান চলাচলের আদেশ বা অনুমতি চেয়ে (মানবিক দিক বিবেচনা করে) একটি আবেদন করা হয়।

যা বর্তমানে উচ্চ আদালতে চলমান বা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এবং আমরা আরো বলতে চাই যে, বিগত বছরগুলিতে এবং এখন পর্যন্ত যত রিক্সা-ভ্যানের জন্য বিদেশ থেকে যন্ত্রাংশ/পার্টস আমদানী করা হচ্ছে, প্রত্যকটিরই সরকার রাজস্ব পাচ্ছে। এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা সবসময়-ই শ্রমিক বান্ধব ও মমতাময়ী নেত্রী। আমরা এই ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও ভ্যানগুলো মহাসড়ক বাদে শাখা রাস্তায় ও সরকারী বিধিনিষেধ মেনে চলাচলের জন্য, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সদয় হস্তেক্ষপ কামনা করছি।

বাৎসরিক ভাবে সরকারকে রজস্ব দিয়ে হলেও আমরা এই পদেক্ষপটি- দ্রুত সমাধান হবে বলে আশা করছি। এবং করোনাকালীন লকডাউন সময়েও গরীব দুঃখী- মেহনতী মানুষের জন্য রিক্সা চালকদের রাস্তায় চলাচলের অনুমতি প্রদান করায়, শ্রমিক বান্ধব নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকলীগের পক্ষ থেকে, আন্তরিক ভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি”।