জাপানি ব্যবসায়িদের নিয়ে বিজনেস সেমিনার আয়োজন করেছে টোকিওস্থ দূতাবাস

অনলাইন ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:৩৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

ছবি সংগৃহীত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী (মুজিববর্ষ) ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে জাপানের বাংলাদেশ দূতাবাস মঙ্গলবার  (১৬ নভেম্বর ) ‘বাংলাদেশঃ এ ল্যান্ড অফ ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট অপরচুনিটিস’ শীর্ষক এক বিজনেস সেমিনারের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানে জাপানের নেতৃস্থানীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারগণ যারা স্বানামধন্য প্রতিষ্ঠান দ্যা ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডশিপ এক্সচেঞ্জ কাউন্সিল (এফ ই সি) এর সদস্য অংশগ্রহণ করেন।

দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ। রাষ্ট্রদূত আগত অতিথিদের স্বাগত জানান। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

বিগত এক যুগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রাজ্ঞ ও গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নতি ও সার্বিক উন্নয়ন বিশ্লেষণ করেন রাষ্ট্রদূত আহমদ। তিনি উল্লেখ করেন, করোনা মহামারির সময়েও বাংলাদেশ গতবছর ৫.৪% হারে জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। “বাংলাদেশকে একটি বিনিয়োগ ও ব্যবসা বান্ধব গন্তব্য যেখানে সরকার বিভিন্ন সহযোগিতা প্রদান করছে,  যেখানে বেশি মুনাফা করা সম্ভব” উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত জাপানি ব্যবসায়িদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

দ্যা ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডশিপ এক্সচেঞ্জ কাউন্সিল (এফ ই সি) এর প্রেসিডেন্ট কেন মাতসুজাওয়া তাঁর বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে তাঁর অবদানের কথা স্মরণ করেন। তিনি রাষ্ট্রদূত ও দূতাবাসের সকলকে এই সেমিনার আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ প্রদান করেন। তিনি বলেন, “আমি বিশ্বাস করি এই সেমিনারে মতবিনিময় ও আলোচনার মাধ্যমে ভবিষ্যতে তথ্য প্রযুক্তি, নির্মাণ শিল্প, মেডিক্যাল কেয়ারসহ বিভিন্ন খাতে জাপান – বাংলাদেশ বাণিজ্য বৃদ্ধি ও সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখবে”।

পরে বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি খাতের সম্ভাবনা নিয়ে উপস্থাপনা করেন দূতাবাসের ইকোনমিক মিনিস্টার সৈয়দ নাসির এরশাদ, বিনিয়োগ গন্তব্য হিসাবে বাংলাদেশ শিরোনামে উপস্থাপনা করেন কমার্শিয়াল কাউন্সেলর ড. আরিফুল হক এবং জাপানে বাংলাদেশের দক্ষ শ্রমিক নিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন শ্রম কাউন্সেলর মোঃ জাকির হোসেন।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে মিশন উপ-প্রধান শাহ আসিফ রহমান অনুষ্ঠানে আয়োজন সংশ্লিষ্ট সকলকে এবং অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানান। সেমিনারটি আয়োজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন দূতাবাসের প্রথম সচিব (প্রেস) মুহা. শিপলু জামান।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...