ঢাকা ১২:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

এবারও বাংলাদেশিদের হজ করা হচ্ছে না

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০১:২৩:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ জুন ২০২১
  • / 176
::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::

সৌদি আরব করোনা সংক্রমণ এড়াতে টানা দ্বিতীয় বছরের মতো বিদেশিদের হজে যাওয়া নিষিদ্ধ করেছে। এর ফলে এবারও বাংলাদেশিদের হজ করা হচ্ছে না।

করোনা মহামারির কারণে সৌদি আরব সরকার এবছর শুধু তাদের নাগরিক এবং দেশটিতে বসবাসরতদের হজ করার সুযোগ দিচ্ছে বলে জানিয়েছে আরব নিউজ। শনিবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছর সর্বমোট ৬০ হাজার ব্যক্তি হজ করতে পারবেন।

করোনা মহামারি শুরুর আগে সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় সপ্তাহব্যাপী হজ পালনের জন্য ২৫ লাখের বেশি মানুষ সমবেত হতেন। এ থেকে প্রতিবছর ১ হাজার ২০০ কোটি মার্কিন ডলার আয় হতো সৌদি আরবের।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অর্থনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনা অনুযায়ী দেশটি ২০২০ সাল নাগাদ ওমরাহ ও হজের জন্য আগত মুসল্লিদের সংখ্যা দুই কোটিতে উন্নীত করতে চেয়েছিল। আর ২০৩০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা তিন কোটিতে নিয়ে যেতে চেয়েছিল তারা।

এই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০৩০ সাল নাগাদ শুধু হজ থেকেই ৫০ বিলিয়ন রিয়াল (১৩ দশমিক ৩২ বিলিয়ন ডলার) আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল সৌদি আরব।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

এবারও বাংলাদেশিদের হজ করা হচ্ছে না

আপডেট : ০১:২৩:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ জুন ২০২১
::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::

সৌদি আরব করোনা সংক্রমণ এড়াতে টানা দ্বিতীয় বছরের মতো বিদেশিদের হজে যাওয়া নিষিদ্ধ করেছে। এর ফলে এবারও বাংলাদেশিদের হজ করা হচ্ছে না।

করোনা মহামারির কারণে সৌদি আরব সরকার এবছর শুধু তাদের নাগরিক এবং দেশটিতে বসবাসরতদের হজ করার সুযোগ দিচ্ছে বলে জানিয়েছে আরব নিউজ। শনিবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছর সর্বমোট ৬০ হাজার ব্যক্তি হজ করতে পারবেন।

করোনা মহামারি শুরুর আগে সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় সপ্তাহব্যাপী হজ পালনের জন্য ২৫ লাখের বেশি মানুষ সমবেত হতেন। এ থেকে প্রতিবছর ১ হাজার ২০০ কোটি মার্কিন ডলার আয় হতো সৌদি আরবের।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অর্থনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনা অনুযায়ী দেশটি ২০২০ সাল নাগাদ ওমরাহ ও হজের জন্য আগত মুসল্লিদের সংখ্যা দুই কোটিতে উন্নীত করতে চেয়েছিল। আর ২০৩০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা তিন কোটিতে নিয়ে যেতে চেয়েছিল তারা।

এই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০৩০ সাল নাগাদ শুধু হজ থেকেই ৫০ বিলিয়ন রিয়াল (১৩ দশমিক ৩২ বিলিয়ন ডলার) আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল সৌদি আরব।