সংস্কৃতি ও সৃজনশীলতার ভূমিকার ওপর ব্রিটিশ কাউন্সিলের গুরুত্বারোপ

নিজস্ব প্রতিবেদক;
  • প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০২১, ১১:০৮ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

ছবি সংগৃহীত

সাংস্কৃতিক সম্পর্ক ও শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত ব্রিটিশ কাউন্সিল যুক্তরাজ্যের একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা। ১ থেকে ১২ নভেম্বর স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিতব্য ২৬তম জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলনে (কপ২৬) প্রতিষ্ঠানটি এর জলবায়ু পরিবর্তনে সৃজনশীল সমাধান খুঁজে পেতে বিশ্বজুড়ে মানুষকে সহায়তা প্রদানকারী ক্লাইমেট কানেকশন প্রোগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো গুরুত্বসহকারে তুলে ধরছে।ব্রিটিশ কাউন্সিল কপ২৬ ব্লু জোন প্যাভিলিয়ন থেকে জলবায়ু পরিবর্তনের জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক নীতির ভূমিকা সম্পর্কিত আলোচনায় সম্পৃক্ত হয়েছে।

ক্লাইমেট কানেকশন প্রোগ্রামটি চলতি বছরের জুনে চালু হয়েছে। এ প্রোগ্রাম ১১ থেকে ৩৫ বছর বয়সী তরুণদের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম ও আয়োজনের বৈশ্বিক প্রোগ্রামের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় শিল্প ও সংস্কৃতি, শিক্ষা এবং ইংরেজি ভাষার মাধ্যমে মানুষকে একত্রিত করে।

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ব্রিটিশ কাউন্সিলের ভূমিকা তুলে ধরে এর প্রধান নির্বাহী স্কট ম্যাকডোনাল্ড বলেন, ভবিষ্যত জলবায়ু পরিবর্তন নীতি গঠনে তরুণদের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। কপ২৬ সহ সকল স্থানে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক আলোচনায় তাদের মতামতকে অন্তর্ভুক্ত করতে ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

আমাদের ক্লাইমেট কানেকশন প্রোগ্রামের মতো উদ্যোগের মাধ্যমে স্থানীয়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিসরে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে তাদের প্রয়োজনীয় দক্ষতা, অভিজ্ঞতা ও কানেকশন অর্জনে সহায়তা করার জন্য আমরা যুক্তরাজ্যের বিশেষজ্ঞদের গড়ে তুলছি। যুক্তরাজ্যের সাথে অন্যান্য দেশ, সম্প্রদায় ও প্রজন্মের সংযোগ স্থাপন ও আস্থা তৈরি এবং এটি বাস্তবায়নে বিশ্বব্যাপী তরুণদের ক্ষমতায়ন করাই ব্রিটিশ কাউন্সিলের মূল লক্ষ্য।

কপ২৬ চলাকালে ব্রিটিশ কাউন্সিল বেশ কয়েকটি পার্টনার-লেড ইভেন্ট আয়োজনে সহযোগিতা করছে। একইসাথে সংস্থাটি বিশ্বব্যাপী আগ্রহীদের জন্য অনলাইনেও নানা প্রোগ্রাম আয়োজন করেছে। যার মধ্যে রয়েছে যেসব ইংরেজি শিক্ষক তাদের শিক্ষা পদ্ধতিতে জলবায়ু বিষয়কে অন্তর্ভুক্ত করতে চায়, তাদের জন্য ম্যাসিভ ওপেন অনলাইন কোর্স (এমওওসি), ইউনিভার্সিটি অব এডিনবার্গের সাথে অংশীদারিত্বে কপ২৬ এমওওসি নিয়ে লাইভ আয়োজন এবং ক্লাইমেট ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ কম্পিটিশনের আরেকটি সংস্করণ ডেস্টিনেশন জিরো’র উদ্বোধন।

৩ নভেম্বর বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রকাশ টিম তুলে ধরে যে, স্থানীয় ভাবে পরিচালিত বিভিন্ন উদ্যোগ সঠিক পদ্ধতিতে পরিচালনা করলে তা জাতীয় ও বৈশ্বিক পর্যায়ের নীতিসমূহ কার্যকরীভাবে মানুষকে জানানো যেতে পারে, যা জলবায়ু সংরক্ষণে ইতিবাচকভাবে ফলপ্রসূ হবে। এ অধিবেশনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী, এমপি, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, এমপি, শামীম পাটোয়ারী, এমপি এবং প্রকাশ এর প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরের দিন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় তাদের ‘মিনিমাইজিং লস অ্যান্ড ড্যামেজ অব ইন্টারনাল ডিসপে¬সমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কৌশল উন্মোচন করে। এটি প্রকাশ টিমের সার্বিক সহায়তায় তৈরি করা হয়েছে। উক্ত অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, এমপি, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহসিন এবং পিআরওকেএএস’র প্রতিনিধিগণ।

ব্রিটিশ কাউন্সিলের অন্যান্য উদ্যোগের মধ্যে আছে বাংলাদেশের ফিল্ম ‘দ্যা সল্ট ইন আওয়ার ওয়াটারস’, ও ‘এ বেটার টুমরো’ প্রতিযোগিতার কিছু ছবি প্রদর্শনী, শিল্প, বিজ্ঞান ও ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত বিষয়ে জানার জন্য ক্রিয়েটিভ কমিশন, একটি গ্রিন ক্যারিয়ার গাইড, যা শিক্ষার সুযোগ ও গ্রিন চাকরি পেতে পরামর্শ প্রদান করে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি থেকে বৈশ্বিক ঐতিহ্য রক্ষার জন্য তহবিল গঠন।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...