‘অপরাধের ধরন বুঝে পুলিশকেও প্রস্তুত করা হচ্ছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক;
  • প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২১, ১:৪৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

ছবি সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, অপরাধের ধরন পাল্টে যাচ্ছে এবং সামনে আরও যাবে। যা আমরা চিন্তাও করতে পারবো না। তাই সে অনুযায়ী পুলিশ বাহিনীকেও তৈরি করছি। এনটিএমসিকেও আমরা সেভাবেই তৈরি করছি। এই সমঝোতার মাধ্যমে এনটিএমসি আরও শক্তিশালী হবে।’

বুধবার দুপুরে রাজধানীর বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) এক সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এবং ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের (এনটিএমসি) এ সমঝোতা চুক্তি হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসময় বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের কারণে আজ অনেক কিছুই বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে। বিটিআরসি মাধ্যমে এনইআইআর চালু হওয়ার ফলে মোবাইলফোন শনাক্ত করাটা সহজতর হয়েছে। যা সত্যিই প্রশংসনীয়।’

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সোহেল ও তার সহযোগীকে গুলি করে হত্যার ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘গত পরশু দিন একটা হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। আমাদের পুলিশ বাহিনী চেষ্টা করছে। আশা করছি, আমরা আজ বা কালের মধ্যে সমস্ত রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারব।’

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আপনারা তো দেখেছেন, গভীর রাতে কুমিল্লায় একটি ছেলে কোরআন শরিফ নিয়ে কী ধরনের কাণ্ড ঘটিয়েছিল। তার উদ্দেশ্য কী ছিল? সেটাও আমরা বের করে ফেলেছি। সেটা শনাক্ত করা সম্ভব হতো না, যদি না আমরা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতাম।’

বিটিআরসির ‘এনওসি অটোমেশন এবং আইএমইআই ডেটাবেইস’ সিস্টেমের সঙ্গে এনটিএমসির ‘ইন্টিগ্রেটেড ল’ফুল ইন্টারসেপশন সিস্টেম’–এর ইন্টিগ্রেশন–বিষয়ক এ সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। চুক্তিতে সই করেন বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের রেডিও কমিউনিকেশন স্টাডি অ্যান্ড রিসার্চ ডিরেক্টরের পরিচালক মো. সোহেল রানা এবং বিটিএমসির অতিরিক্ত পরিচালক মো. শাওগাতুল আলম।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন, ডাক ও টেলি যোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ‘আগামী ১২ ডিসেম্বর আমরা ৫–জি প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ করব। প্রচলিত যে অবস্থা আছে বা সমাজ, সংস্কৃতি, অর্থনীতি অথবা যে জগতে বসবাস করি, তাতে এমন পরিবর্তন আনবে, যা হয়তো আমরা ধারণাও করতে পারছি না।’

ডিজিটাল অপরাধগুলোর বড় একটা অংশ সংঘটিত হয় ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা না থাকার কারণে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিটিআরসি আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমান, এনটিএমসির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান, বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহীদুল আলম, বিটিআরসির কমিশনার প্রকৌশলী এ কে এম শহীদুজ্জামান।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...