ঢাকা ০৬:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণ জানালেন তথ্যমন্ত্রী

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, গত অর্থবছরে (২০২১-২২) আমাদের সরকার জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ৫৩ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছে। কিন্তু আশপাশের দেশগুলো সেভাবে ভর্তুকি দেয়নি। আশপাশের দেশগুলোতে জ্বালানি তেলের মূল্য অনেক আগেই বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে মূল্যবৃদ্ধি করতে জ্বালানি তেলের দাম যে পর্যায়ে গেছে আশপাশের দেশগুলোতে বহু আগে থেকেই ছিল। আশপাশের দেশগুলোর সঙ্গে মূল্য সমন্বয় করায় আমাদের দেশে দাম ওইসব দেশগুলোর পর্যায়ে পৌঁছেছে। তবে তা অনেক দেশের তুলনায় কম। আর দেশের পক্ষে এভাবে ভর্তুকি দেয়া সম্ভব নয়।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে (টিএসসি) বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে এক লিটার ডিজেলের দাম বাংলাদেশি টাকায় ১১৪ টাকা করা হয়েছে অনেক আগে। অকটেনের মূল্য ১৩৪ টাকা আগে থেকেই ছিল। আমাদের দেশে দাম কম হওয়ার কারণে সীমান্ত দিয়ে প্রচুর জ্বালানি তেল পাচার হয়ে যাচ্ছিল।

বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে তিনি বলেন, আমরা জানি, এতে সাধারণ মানুষের খরচ কিছুটা বাড়বে। জ্বালানি তেলের মূল্য যে অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে তা নিয়ে অনেক বিশেষজ্ঞ আজ রাতে টেলিভিশনের পর্দা গরম করবেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে নানান ধরনের বিশেষজ্ঞ রয়েছেন। এর মধ্যে সবজান্তা বিশেষজ্ঞই বেশি। পড়েছেন আইন কিন্তু হয়েছেন অর্থনীতি বিশেষজ্ঞ। যিনি আবার অর্থনীতি পড়েছেন তিনি হয়েছেন আইন বিশেষজ্ঞ।

তিনি বলেন, যদি একটি বাসে ৫০ জন যাত্রী ধারণ ক্ষমতা থাকে এবং এর মধ্যে যদি ৭০ ভাগ আসন পূর্ণ থাকে, তাহলে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়বে মাত্র ২৯ পয়সা। বর্তমানে প্রতি কিলোমিটারে এক টাকা ৮০ পয়সা করে ভাড়া নেয়া হয়। সেটি বেড়ে এখন দুই টাকা নয় পয়সা হবে। সরকার পরিবহন সেক্টরসহ সবার সঙ্গে বসবে এবং মূল্যবৃদ্ধির অবৈধ সুযোগ যাতে কেউ নিতে না পারে, সেদিকে লক্ষ্য রাখবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ, ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস এবং সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

জনপ্রিয় সংবাদ

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণ জানালেন তথ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৬:৪৭:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ অগাস্ট ২০২২
জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, গত অর্থবছরে (২০২১-২২) আমাদের সরকার জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ৫৩ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছে। কিন্তু আশপাশের দেশগুলো সেভাবে ভর্তুকি দেয়নি। আশপাশের দেশগুলোতে জ্বালানি তেলের মূল্য অনেক আগেই বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে মূল্যবৃদ্ধি করতে জ্বালানি তেলের দাম যে পর্যায়ে গেছে আশপাশের দেশগুলোতে বহু আগে থেকেই ছিল। আশপাশের দেশগুলোর সঙ্গে মূল্য সমন্বয় করায় আমাদের দেশে দাম ওইসব দেশগুলোর পর্যায়ে পৌঁছেছে। তবে তা অনেক দেশের তুলনায় কম। আর দেশের পক্ষে এভাবে ভর্তুকি দেয়া সম্ভব নয়।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে (টিএসসি) বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে এক লিটার ডিজেলের দাম বাংলাদেশি টাকায় ১১৪ টাকা করা হয়েছে অনেক আগে। অকটেনের মূল্য ১৩৪ টাকা আগে থেকেই ছিল। আমাদের দেশে দাম কম হওয়ার কারণে সীমান্ত দিয়ে প্রচুর জ্বালানি তেল পাচার হয়ে যাচ্ছিল।

বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে তিনি বলেন, আমরা জানি, এতে সাধারণ মানুষের খরচ কিছুটা বাড়বে। জ্বালানি তেলের মূল্য যে অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে তা নিয়ে অনেক বিশেষজ্ঞ আজ রাতে টেলিভিশনের পর্দা গরম করবেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে নানান ধরনের বিশেষজ্ঞ রয়েছেন। এর মধ্যে সবজান্তা বিশেষজ্ঞই বেশি। পড়েছেন আইন কিন্তু হয়েছেন অর্থনীতি বিশেষজ্ঞ। যিনি আবার অর্থনীতি পড়েছেন তিনি হয়েছেন আইন বিশেষজ্ঞ।

তিনি বলেন, যদি একটি বাসে ৫০ জন যাত্রী ধারণ ক্ষমতা থাকে এবং এর মধ্যে যদি ৭০ ভাগ আসন পূর্ণ থাকে, তাহলে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়বে মাত্র ২৯ পয়সা। বর্তমানে প্রতি কিলোমিটারে এক টাকা ৮০ পয়সা করে ভাড়া নেয়া হয়। সেটি বেড়ে এখন দুই টাকা নয় পয়সা হবে। সরকার পরিবহন সেক্টরসহ সবার সঙ্গে বসবে এবং মূল্যবৃদ্ধির অবৈধ সুযোগ যাতে কেউ নিতে না পারে, সেদিকে লক্ষ্য রাখবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ, ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস এবং সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।