ঢাকা ০১:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জয়ে ফিরেই শীর্ষে রিয়াল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১১:৪১:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমাবার, ৩০ অগাস্ট ২০২১
  • / 117

আলভেসের বিপক্ষে বড় জয় দিয়েই মৌসুম শুরু করেছিলো স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু পরের ম্যাচেই লেভান্তের সঙ্গে ড্র করে হোঁচট খায় রিয়াল। তবে জয়ে ফিরতে একদই সময় নেয়নি জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

রিয়াল বেটিসের মাঠে খেলতে গিয়ে ১-০ গোলের জয় নিয়েই ঘরে ফিরেছে রিয়াল। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর ম্যাচের ৬১ মিনিটের সময় জয়সূচক গোলটি করেন দানি কারভাহাল।

লা লিগায় তৃতীয় ম্যাচে রিয়াল বেতিস তাদের ভালোই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিল। ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল করেছে সাধ্যমতো লড়াই। কিন্তু পাল্টা-পাল্টি আক্রমণের ম্যাচে নিজেদের মাঠে হার এড়ানো যায়নি। দানি কার্ভাহালের একমাত্র গোলে রিয়াল মাদ্রিদ হারিয়েছে রিয়াল বেতিসকে। তিন ম্যাচে দুই জয় ও একটিতে ড্র নিয়ে সাত পয়েন্ট পেয়ে শীর্ষে এখন শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ। বিপরীতে তিন ম্যাচে দুই ড্র ও একটিতে হার বেতিসের।

খেলার মাঠে বল দখলে দুই দল প্রায় সমানে সমান। তবে প্রথম আক্রমণটা রিয়াল মাদ্রিদের। ম্যাচ ঘড়ির ৬ মিনিটে বেনজেমার শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। বেতিসও আক্রমণে উঠেছে। গোলের সুযোগও এই অর্ধে কম পায়নি। তবে গোলকিপার কোর্তোয়া ছিলেন তেকাঠির নিচে দুর্বার। একাই রুখে দিয়েছেন একের পর এক আক্রমণ। ১১ মিনিটে নাবিল ফেকিরের ফ্রি-কিক কোর্তোয়া ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন। ৩১ মিনিটে ফেকিরের আরও একটি প্রচেষ্টা নস্যাত করে দেন কোর্তোয়া।

৪০ মিনিটে জুনামির শট কোর্তোয়া রুখে দিয়ে দলকে ম্যাচে রাখেন। রিয়াল ফাঁকে ফাঁকে আক্রমণে উঠলেও লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি। বিরতির পর অবশ্য রিয়ালের আক্রমণে তেজ বাড়ে।

৫২ মিনিটে বেলের ক্রসে বেনজেমার মাপা হেড গোলকিপার কোনোমতো প্রতিহত করেন। একটু পরই বেনজেমা হেডে বল জালে জড়ালে অফসাইডের কারণে গোল হয়নি।

৬১ মিনিটে রিয়াল মাদ্রিদ একমাত্র গোলটি পায়। ভিনিসিয়াস বাইলাইন থেকে বল বাড়িয়ে দেন সতীর্থ খেলোয়াড়ের উদ্দেশে, বেনজেমা তা পেয়েই ক্রস ভাসিয়েছেন শূন্যে; অন্য প্রান্তে কার্ভাহালের স্লাইডিং ভলিতে জাল কাঁপাতে কোনও সমস্যাই হয়নি। গোলকিপার রুই সিলভা বলের লাইনে ঝাঁপালেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি।

৭৩ মিনিটে এসেনসিয়োর শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়। শেষের দিকে বেতিস চেষ্টা করেও সমতায় ফিরতে পারেনি। নিজেদের মাঠে হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

জয়ে ফিরেই শীর্ষে রিয়াল

আপডেট : ১১:৪১:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমাবার, ৩০ অগাস্ট ২০২১

আলভেসের বিপক্ষে বড় জয় দিয়েই মৌসুম শুরু করেছিলো স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু পরের ম্যাচেই লেভান্তের সঙ্গে ড্র করে হোঁচট খায় রিয়াল। তবে জয়ে ফিরতে একদই সময় নেয়নি জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

রিয়াল বেটিসের মাঠে খেলতে গিয়ে ১-০ গোলের জয় নিয়েই ঘরে ফিরেছে রিয়াল। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর ম্যাচের ৬১ মিনিটের সময় জয়সূচক গোলটি করেন দানি কারভাহাল।

লা লিগায় তৃতীয় ম্যাচে রিয়াল বেতিস তাদের ভালোই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিল। ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল করেছে সাধ্যমতো লড়াই। কিন্তু পাল্টা-পাল্টি আক্রমণের ম্যাচে নিজেদের মাঠে হার এড়ানো যায়নি। দানি কার্ভাহালের একমাত্র গোলে রিয়াল মাদ্রিদ হারিয়েছে রিয়াল বেতিসকে। তিন ম্যাচে দুই জয় ও একটিতে ড্র নিয়ে সাত পয়েন্ট পেয়ে শীর্ষে এখন শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ। বিপরীতে তিন ম্যাচে দুই ড্র ও একটিতে হার বেতিসের।

খেলার মাঠে বল দখলে দুই দল প্রায় সমানে সমান। তবে প্রথম আক্রমণটা রিয়াল মাদ্রিদের। ম্যাচ ঘড়ির ৬ মিনিটে বেনজেমার শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। বেতিসও আক্রমণে উঠেছে। গোলের সুযোগও এই অর্ধে কম পায়নি। তবে গোলকিপার কোর্তোয়া ছিলেন তেকাঠির নিচে দুর্বার। একাই রুখে দিয়েছেন একের পর এক আক্রমণ। ১১ মিনিটে নাবিল ফেকিরের ফ্রি-কিক কোর্তোয়া ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন। ৩১ মিনিটে ফেকিরের আরও একটি প্রচেষ্টা নস্যাত করে দেন কোর্তোয়া।

৪০ মিনিটে জুনামির শট কোর্তোয়া রুখে দিয়ে দলকে ম্যাচে রাখেন। রিয়াল ফাঁকে ফাঁকে আক্রমণে উঠলেও লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি। বিরতির পর অবশ্য রিয়ালের আক্রমণে তেজ বাড়ে।

৫২ মিনিটে বেলের ক্রসে বেনজেমার মাপা হেড গোলকিপার কোনোমতো প্রতিহত করেন। একটু পরই বেনজেমা হেডে বল জালে জড়ালে অফসাইডের কারণে গোল হয়নি।

৬১ মিনিটে রিয়াল মাদ্রিদ একমাত্র গোলটি পায়। ভিনিসিয়াস বাইলাইন থেকে বল বাড়িয়ে দেন সতীর্থ খেলোয়াড়ের উদ্দেশে, বেনজেমা তা পেয়েই ক্রস ভাসিয়েছেন শূন্যে; অন্য প্রান্তে কার্ভাহালের স্লাইডিং ভলিতে জাল কাঁপাতে কোনও সমস্যাই হয়নি। গোলকিপার রুই সিলভা বলের লাইনে ঝাঁপালেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি।

৭৩ মিনিটে এসেনসিয়োর শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়। শেষের দিকে বেতিস চেষ্টা করেও সমতায় ফিরতে পারেনি। নিজেদের মাঠে হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের।