ঢাকা ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আগস্টে নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার ২৭৪ জন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১২:৫০:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • / 166
চলতি বছরের আগস্ট মাসে ১৩১ জন কন্যাশিশু এবং ১৪৩ জন নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছে। বুধবার বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ তথ্য জানিয়েছে।

পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপ-পরিষদে সংরক্ষিত ১৩টি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে এই তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

মহিলা পরিষদ জানায়, আগস্টে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১০৩ জন। এর মধ্যে ৫২ জন কন্যাশিশু ধর্ষণের, ৭ জন কন্যাশিশু দলবদ্ধ ধর্ষণ এবং ১ জন কন্যাশিশু ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছে।

এছাড়াও ১৫ কন্যাশিশুসহ ২৬ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। ১ জন কন্যাশিশুসহ ২ জন শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে, ৬ জন কন্যাশিশুসহ ৯ জন যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে। এসিডদগ্ধের শিকার হয়েছে ১ জন।

মহিলা পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, আগস্টে অগ্নিদগ্ধের কারণে মৃত্যু হয়েছে ১ জনের। ১ জন কন্যাশিশুসহ উত্ত্যক্তকরণের শিকার হয়েছে ৩ জন। ১০ জন কন্যাশিশুসহ ১২ জন অপহরণের শিকার ও ১ জন কন্যাশিশুকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। এছাড়া নারী পাচারের ঘটনা ঘটেছে ২ টি।

আগস্টে বিভিন্ন কারণে ৮ জন কন্যাশিশুসহ ৩০ জনকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে ২ জন কন্যাশিশুসহ ১২ জনকে। যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৮ জন, এর মধ্যে ১ জনকে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৩ জন কন্যাশিশুসহ মোট ১০ জন।

বিভিন্ন নির্যাতনের কারনে আত্মহত্যা করেছে ২ জন কন্যাশিশুসহ ৫ জন। ২ জন কন্যাশিশুসহ ৩ জন আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। ১২ জন কন্যাশিশুসহ ৩৪ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

প্রেমের প্রস্তাবের ঘটনা ঘটেছে ১টি। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধের ঘটনা ঘটেছে ৪টি। ফতোয়ার ঘটনা ঘটেছে ১টি। ১ জন কন্যাশিশুসহ সাইবার অপরাধের শিকার হয়েছে ৬ জন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আগস্টে নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার ২৭৪ জন

আপডেট : ১২:৫০:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
চলতি বছরের আগস্ট মাসে ১৩১ জন কন্যাশিশু এবং ১৪৩ জন নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছে। বুধবার বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ তথ্য জানিয়েছে।

পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপ-পরিষদে সংরক্ষিত ১৩টি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে এই তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

মহিলা পরিষদ জানায়, আগস্টে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১০৩ জন। এর মধ্যে ৫২ জন কন্যাশিশু ধর্ষণের, ৭ জন কন্যাশিশু দলবদ্ধ ধর্ষণ এবং ১ জন কন্যাশিশু ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছে।

এছাড়াও ১৫ কন্যাশিশুসহ ২৬ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। ১ জন কন্যাশিশুসহ ২ জন শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে, ৬ জন কন্যাশিশুসহ ৯ জন যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে। এসিডদগ্ধের শিকার হয়েছে ১ জন।

মহিলা পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, আগস্টে অগ্নিদগ্ধের কারণে মৃত্যু হয়েছে ১ জনের। ১ জন কন্যাশিশুসহ উত্ত্যক্তকরণের শিকার হয়েছে ৩ জন। ১০ জন কন্যাশিশুসহ ১২ জন অপহরণের শিকার ও ১ জন কন্যাশিশুকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। এছাড়া নারী পাচারের ঘটনা ঘটেছে ২ টি।

আগস্টে বিভিন্ন কারণে ৮ জন কন্যাশিশুসহ ৩০ জনকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে ২ জন কন্যাশিশুসহ ১২ জনকে। যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৮ জন, এর মধ্যে ১ জনকে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৩ জন কন্যাশিশুসহ মোট ১০ জন।

বিভিন্ন নির্যাতনের কারনে আত্মহত্যা করেছে ২ জন কন্যাশিশুসহ ৫ জন। ২ জন কন্যাশিশুসহ ৩ জন আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। ১২ জন কন্যাশিশুসহ ৩৪ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

প্রেমের প্রস্তাবের ঘটনা ঘটেছে ১টি। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধের ঘটনা ঘটেছে ৪টি। ফতোয়ার ঘটনা ঘটেছে ১টি। ১ জন কন্যাশিশুসহ সাইবার অপরাধের শিকার হয়েছে ৬ জন।