আসামে কথিত ‘অনুপ্রবেশকারী’ উচ্ছেদে অভিযান, নিহত ২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১:৫৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৪ সপ্তাহ আগে
ছবি নেট মাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজ থেকে নেয়া।

আসামের দরং জেলার সিপাঝারে কথিত ‘অনুপ্রবেশকারী’দের (স্থানীয় গ্রামবাসী) সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সেখানে উচ্ছেদ অভিযান চালাতে গেলে তাদের সঙ্গে রাজ্য পুলিশের এ সংঘর্ষ বাধে। এতে অন্তত দুই গ্রামবাসী নিহত হয়েছেন। কলকাতা থেকে প্রকাশিত প্রভাবশালী দৈনিক আনন্দবাজার অনলাইন এ খবর জানায়।

নেট মাধ্যমে প্রকাশিত এক ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, পুলিশের সামনেই এক ব্যক্তি স্থানীয় একজনকে হাঁটু দিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে আঘাত করছেন; কিল-ঘুষি মারছেন। আহত ওই ব্যক্তি চৈতন্য হারিয়ে মাটিতে পড়ে আছেন চিৎ হয়ে। পরে হামলাকারীকে সরিয়ে নেয় পুলিশ। ভিডিওতে দেখা যায়, আধমরা ওই ব্যক্তি যখন শ্বাস নিচ্ছিলেন কষ্ট করে, তখন গিয়ে ওই হামলাকারী (যাকে পুলিশ সরিয়ে এনেছিল) আবারও কিল-ঘুষি মারতে শুরু করেন।

যে দু’জন মারা গেছেন, আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে তাদের ‘বিক্ষোভকারী’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে কয়েক জন পুলিশ কর্মীও রয়েছেন।

কলকাতার সংবাদমাধ্যমটি জানায়, আসামের ঢোলপুর ৩ নম্বর এলাকায় কথিত ‘বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী’দের উচ্ছেদ করতে অভিযান চালায় রাজ্যটির পুলিশ। অভিযোগ উঠেছে, এ সময়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে পুলিশের উপর আক্রমণ চালায় স্থানীয়দের একাংশ। পাল্টা কাঁদানে গ্যাস আর রাবার বুলেট ছোড়ে পুলিশও।

আরও একটি ভিডিওতে দেখা যায়, আহত পুলিশ কর্মীদের ধরে নিয়ে যাচ্ছেন সহকর্মীরা। পুলিশ সূত্র জানায়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রথমে শূন্যে গুলি চালিয়েছিল পুলিশ। উল্টো দিক থেকে পাল্টা পাথর ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে।

আসামে বর্তমানে বিজেপি নেতৃত্বাধীন হেমন্ত বিশ্ব শর্মার সরকার। সম্প্রতি তিনি দাবি করেন, তার রাজ্যের দূরবর্তী অঞ্চলগুলোতে বসবাসকারী হিন্দুরা একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের (এখানে মুসলিমদের ইঙ্গিত করা হয়েছে) কারণে বিলুপ্তির দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন।

গত রোববার টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, এর জেরে হেমন্ত বিশ্ব শর্মা বিশেষ সম্প্রদায়ের লোকজনের আগ্রাসন থেকে রাজ্যের মানুষকে সুরক্ষা দিতে দেশটির হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএসের (রাষ্ট্রিয় সয়ংসেবক সংঘ) সহযোগিতা চেয়েছিলেন।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...