ঢাকা ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ওয়ানডেতে ৩০০ উইকেটের মালিক সাকিব

ক্রীড়া ডেস্ক
  • আপডেট : ০৮:১৯:১৮ অপরাহ্ন, সোমাবার, ৬ মার্চ ২০২৩
  • / 104
প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে ওয়ানডেতে ৩০০ উইকেট শিকার করলেন সাকিব আল হাসান। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে সাকিবের নামের পাশে ছিল ২৯৬ উইকেট। এ সিরিজের তার সামনে সুযোগ ছিল ৩০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার। আর সেই মাইলফলক ছুঁয়ে ফেললেন টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক।

সোমবার চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে রেহান আহমেদের উইকেট নিয়ে ল্যান্ডমার্কে পৌঁছে যান তিনি। একে একে ইংল্যান্ডের ওপেনার ফিল সল্ট, চারে নামা জেমস ভিন্স, জেসন রয় ও রেহান আহমেদকে ফেরান এই টাইগার অলরাউন্ডার। এই মাইলফলক ছুঁতে ২২৭ ম্যাচ খেলেছেন সাকিব।

এদিকে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁলেন সাকিব। এর আগে শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রিকেটার জয়সুরিয়া ৪৪৫ ম্যাচ খেলে ৩২৩ উইকেট নিয়েছেন। এ ছাড়া ২৯৫ ম্যাচ খেলে ৩০৫ উইকেট নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ড্যানিয়েল ভেট্টরি।

এ ছাড়া সনৎ জয়সুরিয়া এবং শহীদ আফ্রিদির সঙ্গে সাকিবও তৃতীয় অলরাউন্ডার হয়ে ওডিআইতে ৬ হাজার রান করার এবং ৩০০ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন।

২০০৬ সালে হারারেতে এল্টন চিগুম্বুরাকে আউট করে তার প্রথম ওয়ানডে উইকেট পান সাকিব। ২০১০ সালে এশিয়া কাপে ডাম্বুলায় সাকিবের শততম ওডিআই উইকেট ছিল আসাদ শফিক। ২০১৫ সালে ঢাকায় হাশিম আমলা ছিল সাকিবের ২০০তম শিকার।

সাকিব টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে যথাক্রমে ২৩১ এবং ১২৮টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। তিনি বর্তমানে ৪৪৩টি উইকেট নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে পঞ্চম সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। আর টি-টোয়েন্টিতে ৬০০০ রান, ৪০০ উইকেট ও ৫০টি ক্যাচ নিয়েছেন মাত্র দুইজন খেলোয়াড়, সাকিব তাদের একজন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ওয়ানডেতে ৩০০ উইকেটের মালিক সাকিব

আপডেট : ০৮:১৯:১৮ অপরাহ্ন, সোমাবার, ৬ মার্চ ২০২৩
প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে ওয়ানডেতে ৩০০ উইকেট শিকার করলেন সাকিব আল হাসান। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে সাকিবের নামের পাশে ছিল ২৯৬ উইকেট। এ সিরিজের তার সামনে সুযোগ ছিল ৩০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার। আর সেই মাইলফলক ছুঁয়ে ফেললেন টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক।

সোমবার চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে রেহান আহমেদের উইকেট নিয়ে ল্যান্ডমার্কে পৌঁছে যান তিনি। একে একে ইংল্যান্ডের ওপেনার ফিল সল্ট, চারে নামা জেমস ভিন্স, জেসন রয় ও রেহান আহমেদকে ফেরান এই টাইগার অলরাউন্ডার। এই মাইলফলক ছুঁতে ২২৭ ম্যাচ খেলেছেন সাকিব।

এদিকে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁলেন সাকিব। এর আগে শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রিকেটার জয়সুরিয়া ৪৪৫ ম্যাচ খেলে ৩২৩ উইকেট নিয়েছেন। এ ছাড়া ২৯৫ ম্যাচ খেলে ৩০৫ উইকেট নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ড্যানিয়েল ভেট্টরি।

এ ছাড়া সনৎ জয়সুরিয়া এবং শহীদ আফ্রিদির সঙ্গে সাকিবও তৃতীয় অলরাউন্ডার হয়ে ওডিআইতে ৬ হাজার রান করার এবং ৩০০ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন।

২০০৬ সালে হারারেতে এল্টন চিগুম্বুরাকে আউট করে তার প্রথম ওয়ানডে উইকেট পান সাকিব। ২০১০ সালে এশিয়া কাপে ডাম্বুলায় সাকিবের শততম ওডিআই উইকেট ছিল আসাদ শফিক। ২০১৫ সালে ঢাকায় হাশিম আমলা ছিল সাকিবের ২০০তম শিকার।

সাকিব টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে যথাক্রমে ২৩১ এবং ১২৮টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। তিনি বর্তমানে ৪৪৩টি উইকেট নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে পঞ্চম সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। আর টি-টোয়েন্টিতে ৬০০০ রান, ৪০০ উইকেট ও ৫০টি ক্যাচ নিয়েছেন মাত্র দুইজন খেলোয়াড়, সাকিব তাদের একজন।