নেইমার ও ইকার্ডির গোলে পিএসজি হারালো লিওকে

ক্রীড়া ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১:০৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৪ সপ্তাহ আগে
সংগৃহীত ছবি

মাউরো ইকার্ডির করা শেষ সময়ের গোলে প্যারিস সেন্ট জার্মেই রোববার নিজেদের পার্ক ডেস প্রিন্সেস স্টেডিয়ামে ২-১ গোলে লিওকে পরাজিত করেছে। ইকার্ডির ইনজুরি টাইমের গোল সম্মান বাচিয়েছে কোচ মরিসিও পচেত্তিনোর। তারকা সমৃদ্ধ দল মাঠে নামিয়েও তেমন সুবিধা করতে না পারায় কোচের সমালোচনা হচ্ছে প্রতিনিয়তই। নিজেদের মাঠে খেলতে নেমে এ ম্যাচেও গোলের দেখা পাননি লিওনেল মেসি। এ নিয়ে তিন ম্যাচ খেলতে মাঠে নামা মেসি এখনও গোলশূন্যই রয়েছেন। যদিও প্রথমার্ধে তিনি মোটামুটি ভালই খেলেছিলেন এবং একটি ফ্রি কিকের বল ক্রসবারে লাগায় তিনি গোল বঞ্চিত হন। দ্বিতীয়ার্ধে তিনি হয়ে যান নিস্প্রভ। ফলে ৭৫ মিনিটে কোচ তাকে মাঠ থেকে তুলে নেন।

তার বদলে মাঠে নামানো হয় আশরাফ হাকিমিকে। আরেক বদলি খেলোয়াড় ইকার্ডি ইনজুরি টাইমে কাইলিয়ান এমবাপ্পের ক্রস থেকে জয়সুচক গোলটি করেন। প্রথমার্ধে পিএসজির প্রাধান্য থাকলেও খেলায় সে রকম ছন্দ ছিল না। মেসির সাথে অন্যদের এখনও বোঝা পড়াটা তেমন ভাল হয়নি। যে কারণে মেসি নেইমার ও এমবাপ্পের মধ্যে সেভাবে সমন্বয় হচ্ছে না। প্রথমার্ধে ৩৭ মিনিটে মেসির ফ্রি কিকের সুযোগ ছাড়া সেভাবে আর কোন গোলের সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি পিএসজি।

সফরকারী লিও দ্বিতীয়ার্ধের নয় মিনিটে গোল করে এগিয়ে যায়। গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় লুকাস পাকেটা। কার্ল টোকো একাম্বির পাস থেকে দুরন্ত শটে তিনি গোলটি করেন। ৬৩ মিনিটে নেইমারের পেনাল্টি গোল থেকে সমতায় ফেরে পিএসজি। নেইমারই পেনাল্টিটি আদায় করেছিলেন। রেফারি পেনাল্টির বাশি বাজানোর পর পরই তিনি বল হাতে নিয়ে পেনাল্টি মারতে প্রস্তুতি নেন।

এ সময় মেসি অবশ্য কোন আগ্রহ দেখাননি। পিএসজিতে পেনাল্টি মারা নিয়ে এর আগে মেসি ও এডিসন কাভানির মধ্যে বিরোধ হয়েছিল। মেসিই বার্সেলোনার হয়ে পেনাল্টি মারতেন। পিএসজিতে যোগ দেয়ার পর পেনাল্টি কে মারবেন তা নিয়ে কৌতুহল ছিল সবারই। প্রথম পেনাল্টি নেইমার আদায় করায় এবং মারায় এখনও অমীমাংসিতই থেকে গেলো সেই রহস্য। অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার বদলে ৮২ মিনিটে মাঠে নেমেছিলেন ইকার্ডি। ইনজুরি টাইমে তার গোলেই শেষ হাসি হাসে পিএসজি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...