ঢাকা ০৬:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুই ঘণ্টা পর ভিসি মুক্ত হলেও বিক্ষোভ চলছে

রাবি প্রতিনিধি
  • আপডেট : ০৬:০৯:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩
  • / 110
দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর ছাত্রলীগের সহায়তায় মুক্ত হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার। তবে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ অব্যাহত আছে।

এর আগে রোববার বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাবাস বাংলাদেশ’ চত্বরে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। ওইসময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের পাশে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে ফেলেন তারা। দুপুর ২টার কিছু পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে বাসভবনে নিয়ে যায়। সেখানে ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বেলা ১২টা থেকে অবরুদ্ধ থাকার পরে দেড়টার দিকে ছাত্রলীগের সহায়তায় উপাচার্য বাসভবনের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে শিক্ষার্থীরা বাধা দেন। পরে আলোচনা সাপেক্ষে শিক্ষার্থীরা তাকে ভাসভবনে ঢুকতে দেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, বিশ্ববিদ্যালয়ের হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের আহ্বায়ক আব্দুল মজিদ অন্তর, সদস্য সচিব আমানুল্লাহ খান উপস্থিত ছিলেন।

বিকেল পর্যন্ত উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিচ্ছিন্নভাবে শিক্ষার্থীদের অবস্থান করতে দেখা গেছে। অনেক শিক্ষার্থী ঘটনাস্থল ত্যাগ করেছেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে একক নেতৃত্ব না থাকায় বিচ্ছিন্ন অবস্থা লক্ষ্য করা গেছে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। কোনো ঝামেলা নেই। তবে এ ঘটনায় এখনও কোনো পক্ষ অভিযোগ দেয়নি; অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাসের যাত্রী একজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের ভাড়া ও সিটে বাস নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে শনিবার (১১মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিনোদপুর গেইট সংলগ্ন এলাকায় সংঘর্ষের সূচনা হয়। রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত থেমে থেমে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ, হামলা, অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গোটা এলাকায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

দুই ঘণ্টা পর ভিসি মুক্ত হলেও বিক্ষোভ চলছে

আপডেট : ০৬:০৯:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩
দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর ছাত্রলীগের সহায়তায় মুক্ত হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার। তবে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ অব্যাহত আছে।

এর আগে রোববার বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাবাস বাংলাদেশ’ চত্বরে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। ওইসময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের পাশে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে ফেলেন তারা। দুপুর ২টার কিছু পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে বাসভবনে নিয়ে যায়। সেখানে ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বেলা ১২টা থেকে অবরুদ্ধ থাকার পরে দেড়টার দিকে ছাত্রলীগের সহায়তায় উপাচার্য বাসভবনের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে শিক্ষার্থীরা বাধা দেন। পরে আলোচনা সাপেক্ষে শিক্ষার্থীরা তাকে ভাসভবনে ঢুকতে দেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, বিশ্ববিদ্যালয়ের হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের আহ্বায়ক আব্দুল মজিদ অন্তর, সদস্য সচিব আমানুল্লাহ খান উপস্থিত ছিলেন।

বিকেল পর্যন্ত উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিচ্ছিন্নভাবে শিক্ষার্থীদের অবস্থান করতে দেখা গেছে। অনেক শিক্ষার্থী ঘটনাস্থল ত্যাগ করেছেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে একক নেতৃত্ব না থাকায় বিচ্ছিন্ন অবস্থা লক্ষ্য করা গেছে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। কোনো ঝামেলা নেই। তবে এ ঘটনায় এখনও কোনো পক্ষ অভিযোগ দেয়নি; অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাসের যাত্রী একজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের ভাড়া ও সিটে বাস নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে শনিবার (১১মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিনোদপুর গেইট সংলগ্ন এলাকায় সংঘর্ষের সূচনা হয়। রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত থেমে থেমে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ, হামলা, অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গোটা এলাকায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।