ঢাকা ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আন্তর্জাতিক বাজারে আবারও কমলো সয়াবিনের দাম

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট : ০৬:২২:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৪ অক্টোবর ২০২৩
  • / 167
আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিনের দাম কমেছে। শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) তেলবীজটির সরবরাহ মূল্য আরও কমেছে। মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এতে বলা হয়, আলোচ্য কার্যদিবসে সিবিওটিতে সয়াবিনের মূল্য কমেছে শূন্য দশমিক ৪ শতাংশ। প্রতি বুশেলের দাম স্থির হয়েছে ১২ দশমিক ৭১ ডলারে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর যা ছিল ১৩ ডলার ০২ সেন্ট।

বিশ্বের দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ উৎপাদক যুক্তরাষ্ট্রের সরকার জানিয়েছে, দেশটিতে সয়াবিনের চাষ ২৩ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। যদিও এটি বিশ্লেষকদের প্রত্যাশার চেয়ে যা সামান্য কম।

মার্কিন কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ) জানিয়েছে, মার্কিন মুলুকে সয়াবিনের অবস্থার উন্নতি হওয়ায় মজুত পূর্বাভাসের চেয়েও বেশি বেড়েছে। সেই সঙ্গে সরবরাহ হ্রাসের আশঙ্কা কমেছে।

এরই মধ্যে ব্রোকার্স স্টোনেক্স স্নেক্স ডটও বিবৃতি দিয়েছে, ২০২৩ সালে সয়াবিনের উৎপাদন বেড়ে দাঁড়াবে ৪ দশমিক ১৭৫ বিলিয়ন বুশেলে। ১ মাস আগে যে আভাস ছিল ৪ দশমিক ১৪৪ বিলিয়ন বুশেল।

অন্যদিকে, বিশ্বের শীর্ষ উৎপাদক ব্রাজিলে প্রত্যাশিত ভূ-অঞ্চলের ৫ দশমিক ২ শতাংশের সয়াবিনের চাষ সম্পন্ন হয়েছে। প্রত্যাশার চেয়ে দ্রুতগতিতে তা ঘটেছে বলেও জানিয়েছেন দেশটির কৃষি কর্তৃপক্ষ।

ফলে এই দুই দেশ থেকে সরবরাহ ও রপ্তানি বৃদ্ধির জোরালো সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় বিশ্ববাজারে সয়াবিনের ব্যাপক দরপতন হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, সোমবার সয়াবিন, সয়াঅয়েল, সয়ামিলের নিট ক্রেতা ছিল কম্মোডিটি ফান্ডগুলো। বিক্রেতাও ছিল বিশ্বখ্যাত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আন্তর্জাতিক বাজারে আবারও কমলো সয়াবিনের দাম

আপডেট : ০৬:২২:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৪ অক্টোবর ২০২৩
আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিনের দাম কমেছে। শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) তেলবীজটির সরবরাহ মূল্য আরও কমেছে। মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এতে বলা হয়, আলোচ্য কার্যদিবসে সিবিওটিতে সয়াবিনের মূল্য কমেছে শূন্য দশমিক ৪ শতাংশ। প্রতি বুশেলের দাম স্থির হয়েছে ১২ দশমিক ৭১ ডলারে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর যা ছিল ১৩ ডলার ০২ সেন্ট।

বিশ্বের দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ উৎপাদক যুক্তরাষ্ট্রের সরকার জানিয়েছে, দেশটিতে সয়াবিনের চাষ ২৩ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। যদিও এটি বিশ্লেষকদের প্রত্যাশার চেয়ে যা সামান্য কম।

মার্কিন কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ) জানিয়েছে, মার্কিন মুলুকে সয়াবিনের অবস্থার উন্নতি হওয়ায় মজুত পূর্বাভাসের চেয়েও বেশি বেড়েছে। সেই সঙ্গে সরবরাহ হ্রাসের আশঙ্কা কমেছে।

এরই মধ্যে ব্রোকার্স স্টোনেক্স স্নেক্স ডটও বিবৃতি দিয়েছে, ২০২৩ সালে সয়াবিনের উৎপাদন বেড়ে দাঁড়াবে ৪ দশমিক ১৭৫ বিলিয়ন বুশেলে। ১ মাস আগে যে আভাস ছিল ৪ দশমিক ১৪৪ বিলিয়ন বুশেল।

অন্যদিকে, বিশ্বের শীর্ষ উৎপাদক ব্রাজিলে প্রত্যাশিত ভূ-অঞ্চলের ৫ দশমিক ২ শতাংশের সয়াবিনের চাষ সম্পন্ন হয়েছে। প্রত্যাশার চেয়ে দ্রুতগতিতে তা ঘটেছে বলেও জানিয়েছেন দেশটির কৃষি কর্তৃপক্ষ।

ফলে এই দুই দেশ থেকে সরবরাহ ও রপ্তানি বৃদ্ধির জোরালো সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় বিশ্ববাজারে সয়াবিনের ব্যাপক দরপতন হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, সোমবার সয়াবিন, সয়াঅয়েল, সয়ামিলের নিট ক্রেতা ছিল কম্মোডিটি ফান্ডগুলো। বিক্রেতাও ছিল বিশ্বখ্যাত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো।