ঢাকা ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভয়ঙ্কর এডিস মশার অজানা তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : ০৬:০৮:৩৬ অপরাহ্ন, সোমাবার, ১০ জুলাই ২০২৩
  • / 154
এডিস মশা বংশবিস্তারের উপযুক্ত সময় বর্ষাকাল। এর হয় কামড়ে ডেঙ্গু জ্বর। এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গুর জীবাণু একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। ভয়াবহ এই মশা চেনার উপায় ও কখন কামড়ায় তা নিয়ে রয়েছে ভিন্ন মত। চলুন জেনে নেয়া যাক এডিস মশা চেনার উপায়-

সাধারণত এডিস মশা অন্য মশার চেয়ে বেশি কালো হয়ে থাকে। এর পায়ে ও শরীরের পাশে সাদা ডোরাকাটা দাগও থাকে। অন্য মশার ক্ষেত্রে মাঝ বরাবর সাদা দাগ থাকে। আর এডিস মশার মাথার পেছনে ওপরের দিকে কাস্তের মতো সাদা দাগ থাকে। এই দুটো শারীরিক গঠন ডিস মশাকে অন্য মশা থেকে আলাদা করে চিহ্নিত করা যায়।

প্রচলিত তথ্য অনুযায়ী, দিনের বেলায় এডিস মশা কামড়ায়। বলা হয় ভোর বা সূর্য ওঠার ৩-৪ ঘণ্টা পর এবং বিকেল থেকে সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সক্রিয় থাকে এই মশা। তবে এডিস মশা যে কেবল দিনে কামড়ায়, রাতে কামড়ায় না এমন ধারণা ভুল। এ মশা কখন সক্রিয় থাকে তা নিয়ে প্রাণীবিজ্ঞানী ও কীটতত্ত্ববিদদের মধ্যে সামান্য মতপার্থক্য আছে।

প্রাণীবিজ্ঞানীদের সাম্প্রতিক পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, কেবল দিনের বেলায় নয় এডিস মশা সক্রিয় থাকে উজ্জ্বল আলোতে। অর্থাৎ ঘর আলোকিত থাকলে রাতেও কামড়াতে পারে এই মশা। তবে ভরদুপুরের চেয়ে আলো-আঁধারি এডিস মশার বেশি পছন্দ। তাই ভোর বা সূর্যোদয়ের সময় এবং গোধূলি বা সূর্যাস্তের সময় এসব মশার ক্ষেত্রে কামড়ানোর জন্য পছন্দসই সময়। রাতের বেলায়ও কৃত্রিম আলো-আঁধারিতে এডিস মশা কামড়াতে পারে।

আর একটি বিষয় এডিস মশা স্বচ্ছ পরিষ্কার পানিতে ডিম পাড়ে। তবে সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে- নোংরা পানিতেও ডিম পাড়তে পারে এই মশা। তাই ডেঙ্গু প্রতিরোধে করতে এডিস মশা ডিম পাড়তে পারে এমন সম্ভাব্য স্থানগুলো স্থানগুলোর বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। রাখতে হবে পরিষ্কার। মশক নিধনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নিতে হবে। বাড়ির আশপাশে, ফুলের টবে জমে থাকা পানি নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভয়ঙ্কর এডিস মশার অজানা তথ্য

আপডেট : ০৬:০৮:৩৬ অপরাহ্ন, সোমাবার, ১০ জুলাই ২০২৩
এডিস মশা বংশবিস্তারের উপযুক্ত সময় বর্ষাকাল। এর হয় কামড়ে ডেঙ্গু জ্বর। এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গুর জীবাণু একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। ভয়াবহ এই মশা চেনার উপায় ও কখন কামড়ায় তা নিয়ে রয়েছে ভিন্ন মত। চলুন জেনে নেয়া যাক এডিস মশা চেনার উপায়-

সাধারণত এডিস মশা অন্য মশার চেয়ে বেশি কালো হয়ে থাকে। এর পায়ে ও শরীরের পাশে সাদা ডোরাকাটা দাগও থাকে। অন্য মশার ক্ষেত্রে মাঝ বরাবর সাদা দাগ থাকে। আর এডিস মশার মাথার পেছনে ওপরের দিকে কাস্তের মতো সাদা দাগ থাকে। এই দুটো শারীরিক গঠন ডিস মশাকে অন্য মশা থেকে আলাদা করে চিহ্নিত করা যায়।

প্রচলিত তথ্য অনুযায়ী, দিনের বেলায় এডিস মশা কামড়ায়। বলা হয় ভোর বা সূর্য ওঠার ৩-৪ ঘণ্টা পর এবং বিকেল থেকে সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সক্রিয় থাকে এই মশা। তবে এডিস মশা যে কেবল দিনে কামড়ায়, রাতে কামড়ায় না এমন ধারণা ভুল। এ মশা কখন সক্রিয় থাকে তা নিয়ে প্রাণীবিজ্ঞানী ও কীটতত্ত্ববিদদের মধ্যে সামান্য মতপার্থক্য আছে।

প্রাণীবিজ্ঞানীদের সাম্প্রতিক পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, কেবল দিনের বেলায় নয় এডিস মশা সক্রিয় থাকে উজ্জ্বল আলোতে। অর্থাৎ ঘর আলোকিত থাকলে রাতেও কামড়াতে পারে এই মশা। তবে ভরদুপুরের চেয়ে আলো-আঁধারি এডিস মশার বেশি পছন্দ। তাই ভোর বা সূর্যোদয়ের সময় এবং গোধূলি বা সূর্যাস্তের সময় এসব মশার ক্ষেত্রে কামড়ানোর জন্য পছন্দসই সময়। রাতের বেলায়ও কৃত্রিম আলো-আঁধারিতে এডিস মশা কামড়াতে পারে।

আর একটি বিষয় এডিস মশা স্বচ্ছ পরিষ্কার পানিতে ডিম পাড়ে। তবে সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে- নোংরা পানিতেও ডিম পাড়তে পারে এই মশা। তাই ডেঙ্গু প্রতিরোধে করতে এডিস মশা ডিম পাড়তে পারে এমন সম্ভাব্য স্থানগুলো স্থানগুলোর বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। রাখতে হবে পরিষ্কার। মশক নিধনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নিতে হবে। বাড়ির আশপাশে, ফুলের টবে জমে থাকা পানি নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে।